ইতিহাস গড়লো ইসলামাবাদ-পেশোয়ার ম্যাচ

14

বৃহস্পতিবার রাতে পাকিস্তান সুপার লিগে (পিএসএল) সর্বোচ্চ দলীয় রানের রেকর্ড ভেঙে দিল ইসলামাবাদ ইউনাইটেড। পেশোয়ার জালমির বিরুদ্ধে এদিন তারা করেছে ২৪৭ রান। যদিও এতদিন যাবত সর্বোচ্চ রানের রেকর্ড তাদের দখলেই ছিল। এর আগে ২০১৯ সালে ২৩৮ রান করেছিল তাড়া। এবার নিজেদের করা রেকর্ড নিজেরাই ভেঙে দিল।

ম্যাচের শুরু থেকেই আক্রমনাত্মক খেলতে থাকেন ইসলামাবাদের অধিনায়ক উসমান খাজা। ৫৬ বলে ১৩টি চার এবং ৩টি ছয়ে খেলেন ১০৫ রানের ইনিংস। খাজার সাথে নেমে যোগ্য সঙ্গ দেন কলিন মুনরো। ২৮ বলে ৪৮ রানের বিধ্বংসী ইনিং খেলেন তিনি। এ ছাড়াও ধ্বংসাত্মক মেজাজে আসিফ আলি ১৪ বলে ৪৩ রান এবং ২২ বলে ৪৬ রানের টর্নেডো ইনিংস খেলেন ক্যারিবিয়ান ব্র্যান্ডন কিং।

জবাবে কামরান আকমল ৩২ বলে ৫৩, শোয়েব মালিক ৩৬ বলে ৬৮, শেরফান রাদারফোর্ড ৮ বলে ২৯ রানে ভর করে লক্ষ্যের খুব কাছে গেলেও শেষ রক্ষা হয়নি। ৬ উইকেটে পেশোয়ারের ইনিংস থামে ২৩২ রানে। ফলে ১৫ রানে জয় পায় ইসলামাবাদ।

এই ম্যাচে দুই ইনিংসে এসেছে ৪৭৯ রান। যা কিনা স্বীকৃত টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের ইতিহাসে ৬ষ্ঠ সর্বোচ্চ রানের ম্যাচ। এবং পিএসএলের ইতিহাসে সর্বোচ্চ রানের ম্যাচ। আর আরব আমিরাতের মাটিতেও এটি যেকোনো স্বীকৃত টি-টোয়েন্টি ম্যাচে সর্বোচ্চ রান অ্যাগরিগেট করার রেকর্ড।

পেশোয়ারের করা এই ম্যাচে ২৩২ রানের ইনিংসটিও ছিল তৃতীয় সর্বোচ্চ হারের ইনিংস। রান তাড়ায় সবচেয়ে বেশি রান করার রেকর্ডটি রয়েছে ওটাগো ভোল্টের দখলে। ২০১৬ সালে সেন্ট্রাল ডিস্ট্রিক্টের বিরুদ্ধে ২৪৮ করেছিল তাঁরা। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রেকর্ডটি ভারতের দখলে। একই বছর ওয়েস্ট ইন্ডিজের দেয়া ২৪৬ রানের লক্ষ্যে ভারত করেছিল ২৪৪ রান।

নিউজ হান্ট/ইস

পূর্ববর্তী নিবন্ধঢাকা ব্যাংকের বংশাল শাখার ভল্ট থেকে চার কোটি টাকা উধাও
পরবর্তী নিবন্ধভারতে করোনায় মৃত্যু আরও দেড় হাজার