উন্নয়ন বাজেটে সর্বোচ্চ বরাদ্দ পরিবহন ও যোগাযোগ খাতে

9

আগামী অর্থবছর দেশের উন্নয়ন খাতে ২ লাখ ৩৭ হাজার ৭৮ কোটি খরচ করবে সরকার। গত কয়েক বছরের মতো ২০২১-২২ অর্থবছরেও পরিবহন ও যোগাযোগ খাতে সবচেয়ে বেশি পরিমাণ অর্থ ব্যয়ের প্রস্তাব দিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল।

উন্নয়ন ব্যয়ের ২৫ দশমিক ৮ শতাংশ ব্যয় হবে খাতটিতে। উন্নয়ন বাজেটে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ১৯ দশমিক ৭ শতাংশ বরাদ্দ পাচ্ছে শিক্ষা ও প্রযুক্তি খাত। একইভাবে স্থানীয় সরকার ও পল্লী উন্নয়নে ১৫ দশমিক ১ শতাংশ, জ্বালানি ও বিদ্যুতে ১১ দশমিক ৫, স্বাস্থ্যে ৬ দশমিক ৬, জনপ্রশাসনে ৬ দশমিক ৪, কৃষিতে ৫ দশমিক ৬, সামাজিক নিরাপত্তায় ৩ ও অন্যান্য খাতে ৬ দশমিক ৩ শতাংশ বরাদ্দের প্রস্তাব দিয়েছেন অর্থমন্ত্রী।

বিগত কয়েক বছরের ধারা বজায় রেখে উন্নয়ন বাজেটে এবারো সর্বোচ্চ বরাদ্দের প্রস্তাব দেয়া হয়েছে পরিবহন ও যোগাযোগ খাতে। আগামী অর্থবছর পরিবহন ও যোগাযোগ খাতে ৬১ হাজার ১৭০ কোটি টাকা। পরিবহন ও যোগাযোগ খাতের জন্য চলতি অর্থবছরের সংশোধিত বাজেট ধরা হয়েছে ৫০ হাজার ৪৪১ কোটি টাকা।

নতুন অর্থবছরের প্রস্তাবিত মোট বাজেটের (পরিচালন ও উন্নয়ন মিলিয়ে) ১১ দশমিক ৯ শতাংশ বরাদ্দ করার প্রস্তাব দেয়া হয়েছে পরিবহন ও যোগাযোগ খাতে। আর চলতি অর্থবছর বাজেটের ১১ দশমিক ২ শতাংশ পরিবহন ও যোগাযোগ খাতে বরাদ্দ ছিল।

আজ বৃহস্পতিবার (৩ জুন) জাতীয় সংসদে অর্থমন্ত্রী ২০২০-২১ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটে পরিবহন ও যোগাযোগ খাতে বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচিতে সড়ক ও মহাসড়ক বিভাগে ২৮ হাজার ৪২ কোটি টাকা, রেলপথ মন্ত্রণালয়ে ১৩ হাজার ৫৫৮ কোটি টাকা, নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ে ৪ হাজার ৩৫৪ কোটি টাকা, বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ে ৩ হাজার ৯৮৩ কোটি টাকা, ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগে ১ হাজার ৪২০ কোটি টাকা এবং সেতু বিভাগে ৯ হাজার ৮১৩ কোটি টাকা বরাদ্দের প্রস্তাব করেন।

নিউজ হান্ট/আরকে

পূর্ববর্তী নিবন্ধবাজেট নিয়ে বিএনপি নেতার প্রতিক্রিয়া
পরবর্তী নিবন্ধ‘বাজেটের আকার অবাস্তব নয়’