কলিমুল্লাহ’র বিদায়ে মিষ্টি বিতরণ, ঢাকার লিয়াজোঁ অফিস বন্ধ করলেন নতুন ভিসি

15

শেষ কর্মদিবসেও ক্যাম্পাসে অনুপস্থিত ছিলেন রংপুরের বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের (বেরোবি) উপাচার্য (ভিসি) অধ্যাপক ড. নাজমুল আহসান কলিমউল্লাহ। তার বিদায়ের দিনে ক্যাম্পাসে মিষ্টি বিতরণ, আতশবাজিসহ আগরবাতি প্রজ্বলন করেছেন শিক্ষার্থীরা। আর দায়িত্ব নিয়েই ঢাকার লিয়াজোঁ অফিসটি পুরোপুরি বন্ধ ঘোষণা করেছেন নবনিযুক্ত উপাচার্য (ভিসি) অধ্যাপক ড. হাসিবুর রশীদ।

গতকাল রোববার (১৩ জুন) ছিল উপাচার্য কলিমউল্লাহর শেষ কর্মদিবস। এদিন চার বছর মেয়াদ পূর্ণ হয়েছে তার। মেয়াদ বর্ধিত না হওয়ায় তাকে বিদায় নিতে হয়। এ উপলক্ষে রাত ৮টায় ক্যাম্পাসে মিষ্টি বিতরণ, আতশবাজিসহ আগরবাতি প্রজ্বলন করেন শিক্ষার্থীরা। একই সঙ্গে আনন্দ উদযাপন করেন তারা।

বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ দফতরের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বিদায়ী উপাচার্য কলিমউল্লাহ তার চার বছর মেয়াদকালে বিভিন্নভাবে সহযোগিতা করার জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের সবাইকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন। একই সঙ্গে সবার কাছে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন বিদায়ী উপাচার্য।

শিক্ষার্থীরা জানিয়েছে, গত চার বছর উপাচার্য কলিমউল্লাহ বিশ্ববিদ্যালয়কে ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে নিয়ে গেছেন। দুই-তিন বছরের সেশনজটে পড়েছেন শিক্ষার্থীরা। বিদায়ের দিনে তার প্রতি ঘৃণা জানাতে আতশবাজি ও মিষ্টি বিতরণ করেছেন তারা।

এদিকে, নতুন ভিসি বলেন, রোববার (১৩ জুন) বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের ঢাকার লিয়াজোঁ অফিসে গিয়েছিলাম। সেখানে গিয়ে লিয়াজোঁ অফিস পুরোপুরি বন্ধ ঘোষণা করেছি। আমি চাই বিশ্ববিদ্যালয়টি এগিয়ে যাক। এখানে যে একাডেমিক সমস্যাগুলো আছে তা দূর করার চেষ্টা করা হবে। আগামী চার বছরে বিশ্ববিদ্যালয়টি যেন পূর্ণাঙ্গ রূপ পায় সে ব্যাপারে সরকারের সহযোগিতা আশা করছি।

আজ সোমবার (১৪ জুন) বিশ্ববিদ্যালয়ে পৌঁছে বেলা ১১টায় সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন উপাচার্য হাসিবুর রশিদ। এসময় তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের দীর্ঘদিনের নানা সমস্যা সমাধানেরও আশ্বাস দেন।

নবনিযুক্ত উপাচার্য বলেন, আমার মনে হয় বিশ্ববিদ্যালয়ের সমস্যাগুলো সমাধান করতে একটু সময় লাগবে। কারণ, সমস্যাগুলো একদিনে তৈরি হয়নি। শিক্ষকদের সঙ্গে আলাপ করে সবাইকে নিয়ে দীর্ঘদিনের সমস্যাগুলো নিরসনের চেষ্টা করবো। গত ১০ বছরে যে সেশনজট তৈরি হয়েছে তা দূর করারও আশ্বাস দেন উপাচার্য।

বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের ৫ম উপাচার্য হিসেবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ম্যানেজমেন্ট ইনফরমেশন সিস্টেম বিভাগের অধ্যাপক ও বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রেজারার ড. হাসিবুর রশীদকে নিয়োগ দিয়ে প্রজ্ঞাপন জারি হয় গত ৯ জুন। নিয়োগ পাওয়ার ৫ম দিনে তিনি সশরীরে ক্যাম্পাসে এসে যোগদান করেন। এসময় শিক্ষক, কর্মকর্তা, কর্মচারী ও শিক্ষার্থীদের পক্ষ থেকে তাকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানানো হয়।

নিউজ হান্ট/আরকে

পূর্ববর্তী নিবন্ধজামালপুর শহরে ১৬ দিনের লকডাউন শুরু
পরবর্তী নিবন্ধআগামী সপ্তাহে ফাইজার ও সিনোফার্মের টিকা দেয়া শুরু