কাদের মির্জার ফেসবুক স্ট্যাটাস ভাইরাল

33

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের ছোট ভাই বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আবদুল কাদের মির্জা এক ফেসবুক স্ট্যাটাসে দাবি করেছেন, তাকে হত্যার নীলনকশা চলছে। পরিকল্পনা অনুযায়ী, তাকে হত্যা করে তার ভাগ্নে ফখরুল ইসলাম রাহাতকে বসুরহাট পৌরসভার মেয়র করা হবে।

তিনি বুধবার (২৪ মার্চ) সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় নিজের ফেসবুক অ্যাকাউন্টে এমন স্ট্যাটাস দিয়ে এ মন্তব্য করেন।

ফেসবুক স্ট্যাটাসে তিনি উল্লেখ করেন, ‘বিশ্বস্তসূত্রে খবর পাওয়া গেছে, আমাকে হত্যার করে তারা এই নীলনকশা বাস্তবায়ন করবে। গত ২১ মার্চ নোয়াখালী জেলহাজতে কারাবন্দি মিজানুর রহমান বাদলের সঙ্গে একরামুল করিম চৌধুরী ও জেহান দেখা করে একটা নতুন ছক তৈরি করেছে। নোয়াখালী-৫ আসনে শিউলি একরামকে এমপি করবে। কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার বর্তমান চেয়ারম্যান জনাব শাহাব উদ্দিন সাহেব পদত্যাগ করবেন, এরপর মিজানুর রহমান বাদলকে চেয়ারম্যান করবে। কবিরহাট উপজেলায় শাবাব চৌধুরীকে উপজেলার চেয়ারম্যান করা হবে। কবিরহাট পৌরসভা নির্বাচনকে সামনে রেখে রায়হান বুঝিয়েছে সে মন্ত্রীর লোক। কিন্তু আসলে সে একরামুল করিম চৌধুরীর লোক। তাই রায়হান কবিরহাট পৌরসভায় মেয়র থাকবে এবং বসুরহাট পৌরসভায় আমাকে হত্যা করে ফখরুল ইসলাম রাহাতকে বসুরহাট পৌরসভার মেয়র করা হবে। এই বিষয়ে মন্ত্রীর স্ত্রী ও নিজাম হাজারীর সঙ্গে ফোন আলাপ করে তারা সিদ্ধান্ত করে। এটাই হচ্ছে তাদের নতুন ছক।’

তবে এসব তথ্য তিনি কোথায় পেলেন জানতে চাইলে আবদুল কাদের মির্জা ফোনে জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে তিনি যতটুকু জানতে পেরেছেন, ততটুকুই ফেসবুক স্ট্যাটাসে উল্লেখ করেছেন। তিনি জীবনের নিরাপত্তার জন্য থানায় জিডি করবেন। থানা জিডি না নিলে, তিনি আদালতের দ্বারস্থ হবেন।

স্বাধীনতা ব্যাংকার্স পরিষদের সদস্য মির্জাবিরোধী বলয়ের অন্যতম নেতা কাদের মির্জার ভাগনে ফখরুল ইসলাম রাহাত ওই স্ট্যাটাসের পরিপ্রেক্ষিতে সাংবাদিকদের কাছে প্রতিক্রিয়ায় বলেন, ‘কাদের মির্জার কার বিরুদ্ধে অভিযোগ নেই। সে নির্লজ্জ মিথ্যাচার করে। সে মিথ্যাচারের জনক এ পরিণত হয়েছে। একজন স্বাভাবিক মানুষ এভাবে কিছু করতে এবং বলতে পারে না। তার দ্রুত মানসিক চিকিৎসার প্রয়োজন। কাদের মির্জার দৃষ্টিতে সে এবং তার ছেলে ছাড়া সৎ এবং ভালো মানুষ আর কেউ নেই।’

নিউজ হান্ট/ম