গ্রিসের বিপক্ষে জয় পায়নি স্পেন

13
কাতার বিশ্বকাপে ওঠার অভিযানে স্পেনের শুরুটা আশানুরূপ হয়নি। পুরোটা সময় আক্রমণাত্মক ফুটবল খেলেও ক্ষণিকের ভুলে গ্রিসের কেছে মূল্যবান দুটি পয়েন্ট হারিয়েছে ২০১০ সালের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা।
বৃহস্পতিবার রাতে গ্রানাদায় ‘বি’ গ্রুপের ম্যাচটি ১-১ গোলে ড্র হয়েছে। আলভারো মোরাতার নৈপুণ্যে স্বাগতিকরা এগিয়ে যাওয়ার পর দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতে সমতা টানেন আনাস্তাসিসোস বাকাসেতাস।
গোটা ম্যাচ জুড়ে প্রায় ৮০ শতাংশ বল নিজেদের দখলে রেখে আক্রমণের পশরা সাঁজায় স্পেন। তবে আক্রমণ করলেও গোলের পরিস্কার সুযোগ তৈরি করতে বেশ বেগ পেতে হয়েছে স্প্যানিশদের। গোলের উদ্দেশে তাদের ৯ শটের মাত্র দুটিই ছিল লক্ষ্যে। বিপরীতে গ্রিস মাত্র একটিই শট নেয় এবং তাতেই ওই গোল।
ম্যাচের ১৪তম মিনিটেই ম্যাচে লিড নেওয়ার সুযোগ পান কোকে। তবে ডি বক্সের ভেতর বল পেয়েও তা প্রতিপক্ষের গায়ে মারেন কোকে।
৩২তম মিনিটে অনেক দূর থেকে স্পেনের মিডফিল্ডার দানি ওলমোর বুলেট গতির শট ক্রসবারে বাধা পায়। এর পরের মিনিটেই এগিয়ে যায় তারা। কোকের দারুণ ক্রস বুক দিয়ে নামিয়ে ছয় গজ দূর থেকে পোস্ট ঘেঁষে গোলটি করেন মোরাতা।
দ্বিতীয়ার্ধের ৫৭ মিনিটের মাথায় নিজেদের ডি বক্সে স্পেনের ডিফেন্ডার ইনিগো মার্টিনেজ বল বিপদমুক্ত করতে গিয়ে প্রতিপক্ষের কার্লোস জেকাকে ফাউল করে বসেন। আর সঙ্গে সঙ্গেই পেনাল্টির বাঁশি বাজান রেফারি। স্পট কিক থেকে গ্রিসকে সমতায় ফেরান বাকাসেতাস।
ম্যাচের বাকি সময় দুর্দান্ত কিছু আক্রমণ করেও শেষ পর্যন্ত আর গোলের দেখা পায়নি স্পেন। তাই তো এদিন ১-১ গোলে ড্র করেই মাঠ ছাড়তে হয় স্প্যানিশদের।
আগামী রোববার বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের দ্বিতীয় ম্যাচে জর্জিয়ার আতিথ্য নেবে স্পেন। গ্রুপের অন্য ম্যাচে জর্জিয়ার বিপক্ষে ঘরের মাঠে ১-০ গোলে জিতেছে সুইডেন। অবসর ভেঙে এই ম্যাচ দিয়েই ফের আন্তর্জাতিক ফুটবলে ফিরলেন ৩৯ বছর বয়সী তারকা জ্লাতান ইব্রাহিমোভিচ।
নিউজ হান্ট/ইস