ছায়ানটে ফুলেল শ্রদ্ধায় সিক্ত মিতা হক

27

ফুলেল শ্রদ্ধায় সিক্ত বরেণ্য সংগীতশিল্পী ও সংগঠক মিতা হক। শেষ বিদায়ের আগে দীর্ঘদিনের কর্মস্থল প্রাণের সংগঠন ছায়ানটে আনা হয় তাকে।

শিল্পীকে শ্রদ্ধা জানাতে আসা বন্ধু, সহকর্মী, স্বজনদের হাতে ছিল ফুল, চোখে জল। ফুল আর চোখের জলেই বিদায় জানালেন প্রিয় শিল্পীকে।

আজ রবিবার (১১ এপ্রিল) সকাল ১১টার দিকে রাজধানীর ছায়ানট ভবনে আনা হয় মিতা হকের মরদেহ। সেখানে পরিবারের সদস্য ছাড়াও শেষ বিদায় জানাতে ছুটে আসেন সাংস্কৃতিক অঙ্গনের লোকজন।

সুরতীর্থ নামে একটি সংগীত প্রশিক্ষণ দল ছিল মিতা হকের। সেখানে তিনি পরিচালক ও প্রশিক্ষক হিসেবে কাজ করতেন। কিন্তু ছায়ানটের সঙ্গে ছিল তার নাড়ির টান। সংগঠনটির ছায়ায় তার বিকাশ ও বেড়ে ওঠা। প্রতিষ্ঠানটির রবীন্দ্রসংগীত বিভাগের প্রধান ছিলেন তিনি। দায়িত্বপালন করেছেন রবীন্দ্রসংগীত সম্মেলন পরিষদের সহ-সভাপতি হিসেবে।

আরও পড়ুন:করোনায় মারা গেলেন রবীন্দ্রসংগীত শিল্পী মিতা হক

রাজধানীর বাংলাদেশ স্পেশালাইজড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রবিবার (১১ এপ্রিল) সকাল ৬টা ২০ মিনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান মিতা হক।

১৯৬৩ সালে জন্মগ্রহণ করেন শিল্পী মিতা হক। তার এককভাবে মুক্তি পাওয়া মোট ২৪টি অ্যালবাম রয়েছে। এর মধ্যে ১৪টি ভারত থেকে ও ১০টি বাংলাদেশ থেকে।

আরও পড়ুন: মিতা হকের মৃত্যুতে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শোক

মিতা হক ২০১৬ সালে শিল্পকলা পদক লাভ করেন। ২০২০ সালে বাংলাদেশ সরকার তাকে একুশে পদকে ভূষিত করে।

নিউজ হান্ট/এনএইচ

পূর্ববর্তী নিবন্ধমামুনুল ইস্যুতে হেফাজতের জরুরি সভা
পরবর্তী নিবন্ধএক আগুনে তিন ধর্মের ১১ হাজার গ্রন্থ পুড়ে ছাই