‘ঢাকা ক্লাবকে ৩৩ কোটি টাকার পুরো বকেয়াই শোধ করতে হবে’

8

বকেয়া মূল্য সংযোজন কর ও সম্পূরক শুল্ক সর্বমোট ৩৩ কোটি টাকা অব্যাহতি চেয়ে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) কাছে আবেদন করেছিল ঢাকা ক্লাব লিমিটেড। তাদের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে এনবিআর জানিয়েছে, আলোচ্য পাওনা থেকে অব্যাহতির সুযোগ নেই।

সুতরাং, সম্পূর্ণ বকেয়া পরিশোধ করতে হবে ক্লাবটিকে। বুধবার (৭ এপ্রিল) এনবিআরের দ্বিতীয় সচিব (মূসক আইন ও বিধি) রেজাউল হাসান স্বাক্ষরিত এক চিঠি থেকে এ তথ্য জানা যায়।

গত ২৫ ফেব্রুয়ারি বকেয়া মূল্য সংযোজন কর ও সম্পূরক শুল্ক অব্যাহতি চেয়ে এনবিআরের কাছে চিঠি দেয় ঢাকা ক্লাব। চিঠির জবাবে বকেয়া মূল্য সংযোজন কর ও সম্পূরক শুল্ক থেকে অব্যাহতি দিতে অপারগতা জ্ঞাপন করে আরেকটি চিঠি দিয়েছে এনবিআর।

চিঠিতে বলা হয়েছে, ঢাকা ক্লাবের কাছ থেকে বকেয়া মূল্য সংযোজন কর ও সম্পূরক শুল্ক অব্যাহতির জন্য অনুরোধ করা হয়। পত্রটি জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের পর্যালোচনা করা হয়েছে। পর্যালোচনায় দেখা যায়, সংশ্লিষ্ট মূল্য সংযোজন কর কার্যালয় সরকারি পাওনা বাবদ ঢাকা ক্লাব লিমিটেডের কাছ থেকে মূল্য সংযোজন কর ২৬ কোটি ৬৯ লাখ ৮২ হাজার ৫৭৩ টাকা এবং সম্পূরক শুল্ক সাত কোটি ৪ লাখ ৫৩ হাজার ৬৫৮ টাকাসহ সর্বমোট ৩৩ কোটি ৭৪ লাখ ৩৬ হাজার ২৩১ টাকার দাবিনামা জারি করা হয়।

প্রতিষ্ঠান কর্তৃপক্ষ এক্ষেত্রে মূল্য সংযোজন কর ও সম্পূরক শুল্ক দেওয়ার দায় থেকে অব্যাহতি দিয়ে মূল্য সংযোজন কর আইন ১৯৯১ এর ধারা ৫৬ এর সব ধরনের কার্যক্রম স্থগিত করার অনুরোধ জানিয়েছে। মূল্য সংযোজন কর আইন ১৯৯১ অনুযায়ী যথাযথ আইনানুগ প্রক্রিয়ায় দাবিনামা জারি করায় আলোচ্য পাওনা থেকে অব্যাহতির সুযোগ নেই। এ কারণে এনবিআর অপারগতা জানিয়েছে। নির্দেশক্রমে অবহিত করা হলো বলেও চিঠিতে উল্লেখ করা হয়েছে।

নিউজ হান্ট/আরকে