দলীয় মহাসচিবসহ আলেম-ওলামাদের মুক্তি চায় খেলাফত মজলিস

9

২০১৩ সালে হেফাজতের তাণ্ডবের ঘটনায় করা মামলায় হেফাজতে ইসলামের কেন্দ্রীয় নায়েবে আমির ও খেলাফত মজলিসের মহাসচিব অধ্যাপক আহমদ আবদুল কাদেরের রিমান্ড শেষে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন আদালত। তবে কাদেরসহ গ্রেপ্তার আলেম-ওলামাদের মুক্তির দাবি জানিয়েছে খেলাফত মজলিস।

আজ শুক্রবার (৩০ এপ্রিল) এক বিবৃতিতে এ দাবি জানানো হয়।

বিবৃতিতে খেলাফত মজলিসের আমির অধ্যক্ষ মাওলানা মোহাম্মদ ইসহাক বলেন, ড. আহমদ আবদুল কাদের একজন বর্ষীয়ান ও পরিচ্ছন্ন রাজনীতিবিদ।

তিনি বলেন, জ্বালাও-পোড়াও রাজনীতির সঙ্গে তার দূরতম সম্পর্ক নেই। খেলাফত মজলিস নিয়মতান্ত্রিক রাজনীতিতে বিশ্বাসী। কিন্তু সম্পূর্ণ রাজনৈতিক প্রতিহিংসার বশবর্তী হয়ে সরকার ড. কাদেরকে রিমান্ড শেষে কারাগারে পাঠিয়েছে। রমজান মাসে একজন সম্মানিত ব্যক্তিকে অন্যায়ভাবে কষ্ট দিচ্ছে। আমরা অবিলম্বে ড. কাদেরের মুক্তি দাবি করছি।

বিবৃতিতে মাওলানা ইসহাক অবিলম্বে আলেম-ওলামা ও ইসলামী ব্যক্তিত্বকে গ্রেপ্তার ও হয়রানি বন্ধের দাবি জানান।

উল্লেখ্য, ২০১৩ সালের ৫ মে ঢাকা অবরোধ করে হেফাজতে ইসলামের নেতাকর্মীরা। সেদিন রাজধানীর মতিঝিল, পল্টন ও আরামবাগসহ আশপাশের এলাকায় যানবাহন ও সরকারি-বেসরকারি স্থাপনায় ব্যাপক ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগ করে হেফাজতের কর্মীরা। এ ঘটনায় পল্টন থানায় মামলা করা হয়।

১৯৮২ সালে শিবিরকে জামায়াতে ইসলামীর অঙ্গ সংগঠন হিসেবে ঘোষণা দেয়া হলে জামায়াতের সঙ্গে আদর্শিক বিরোধে জড়িয়ে পড়েন আহমদ আবদুল কাদের। এরপর শিবির থেকে স্বেচ্ছায় পদত্যাগ করেন তিনি। ১৯৮৩ সালে তিনি ইসলামী যুবশিবিরের প্রতিষ্ঠা করেন। বর্তমানে তিনি ২০ দলীয় জোটের শরিক খেলাফত মজলিসের মহাসচিব।

নিউজ হান্ট/এনএইচ

পূর্ববর্তী নিবন্ধশ্রমিকদের বেতন ও বোনাস সময়মত পরিশোধ করুন: জিএম কাদের
পরবর্তী নিবন্ধশুল্ক ফাঁকি: সামুদ্রিক মাছ পাচারের সময় ভারতীয় ট্রাক জব্দ