নুসরাতের পরিকল্পনায় বিয়ে, স্বামী হিসাবে সব করেছি: নিখিল

13

বিয়ে ও স্বামী নিখিল জৈনের বিষয়ে বিতর্কিত মন্তব্য করে আলোচনার কেন্দ্রে রয়েছেন টালিউডের সন্তানসম্ভবা অভিনেত্রী নুসরাত জাহান। এবার এই বিষয়ে মুখ খুললেন নিখিল নিজেই।

নুসরাত নিখিলের সঙ্গে লিভ-টুগেদার করেছেন বলে দাবি করলেও সরকারি নথিতে তিনি বিবাহিতা এবং স্বামীর নাম নিখিল জৈন। এমতাবস্থায় নুসরতের বিবৃতির সরাসরি উত্তর দিলেন নিখিল জৈন। তিনি জানিয়েছেন, ‘বিয়ে নিয়ে আমার পরিবার এবং আমাকে যে দোষারোপ করা হচ্ছে, তার সত্যতা প্রকাশ করতেই এই বিবৃতি।’

প্রথমত আমি নুসরতের প্রেমে পড়েছিলাম। বিয়ের প্রস্তাবও আমিই দিই এবং নুসরত তা খুশি মনে গ্রহণ করে। আমরা পরিকল্পনা করি বিদেশে গিয়ে বিয়ে করার। সেই মতো ২০১৯ সালে তুরস্কে আমাদের বিয়ে হয় এবং বৌভাত হয় কলকাতায়।

দ্বিতীয়ত, আমরা স্বামী-স্ত্রীর মতোই থাকতাম। সমাজ সেই চোখেই আমাদের দেখেছিল। একজন দায়িত্ববান মানুষ এবং স্বামী হিসেবে যা করার আমি তাই করেছি। আমাদের আত্মীয় স্বজন, বন্ধুবান্ধব সকলেই জানে আমি নুসরতের জন্য কী কী করেছি। ও যা করত, তাতেই আমার সমর্থন ছিল। কোনও দিন কোনও ধরনের শর্ত ওর উপর চাপাইনি। কিন্তু খুব কম সময়ের মধ্যেই নুসরত বদলে যায়। আমাদের দাম্পত্যেও খানিক ছেদ পড়ে।

তৃতীয়ত, আমি বুঝতে পারি, ২০২০ সালের আগস্ট মাসে একটা সিনেমার জন্য শ্যুট করতে গিয়েই আমার প্রতি আমার স্ত্রীর আচরণ সম্পূর্ণ বদলে যেতে শুরু করে। কেন, তার সব চেয়ে ভাল উত্তর ওর কাছেই আছে।

চতুর্থত আমরা যখন একসঙ্গে থাকতাম, নুসরাতকে বারবার বলতাম আমাদের বিয়ের রেজিস্ট্রেশন করে নিতে। প্রত্যেকবার দেখেছি ও সেটা এড়িয়ে যেত।

পঞ্চমত, ২০২০ সালের ৫ নভেম্বর ও আমাকে ছেড়ে চলে যায়। সঙ্গে নিয়ে যায় ওর ব্যবহৃত সমস্ত মূল্যবান জিনিসপত্র, কাগজ এবং গুরুত্বপূর্ণ নথি। ও বালিগঞ্জের ফ্ল্যাটে থাকতে শুরু করে। তার পরে স্বামী-স্ত্রী হিসেবে আমরা আর কোনও দিন একসঙ্গে থাকিনি। ওর ফেলে যাওয়া যাবতীয় জিনিসপত্র এবং আয়কর সম্পর্কিত নথি সব কিছুই কয়েক দিনের মধ্যে ওর ফ্ল্যাটে পাঠিয়ে দেওয়া হয়।

নিউজ হান্ট/কেএইচ

পূর্ববর্তী নিবন্ধবিয়ে নিয়ে মন্তব্যের পর মালালাকে হত্যার হুমকি
পরবর্তী নিবন্ধঅনিবন্ধিত অভিবাসীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া শুরু মালয়েশিয়ার