শুক্রবার, সেপ্টেম্বর ২৪, ২০২১

পরীমনির রিমান্ড: হাইকোর্টে ক্ষমা চাইলেন দুই বিচারক

আরও পড়ুন

নায়িকা পরীমনিকে দ্বিতীয় ও তৃতীয় দফা রিমান্ড মঞ্জুর করায় হাইকোর্টের কাছে ক্ষমা চেয়েছেন দুই বিচারক।

আজ বুধবার দ্বিতীয় ও তৃতীয় দফা রিমান্ড মঞ্জুর করার ব্যাখ্যা হাইকোর্টের কাছে দিয়েছেন রিমান্ড মঞ্জুরকারী ঢাকা মহানগর ম্যাজিস্ট্রেট দেবব্রত বিশ্বাস ও আতিকুল ইসলাম।

হাইকোর্ট বিভাগের রেজিস্ট্রার কার্যালয়ে এ ব্যাখ্যা দাখিল করা হয়েছে। আজ সকালে হাইকোর্টে শুনানির আগে রেজিস্ট্রার কার্যালয় ওই ব্যাখ্যা আদালতে দাখিল করবে।

গত ২ সেপ্টেম্বর বিচারপতি মোস্তফা জামান ইসলাম ও বিচারপতি কে এম জাহিদ সারওয়ার কাজলের হাইকোর্ট বেঞ্চ ১০ দিনের মধ্যে ব্যাখ্যা দাখিল করতে সংশ্লিষ্ট দুই বিচারকের প্রতি নির্দেশ দেন।

একই সঙ্গে মামলার তদন্ত কর্মকর্তাকে ১৫ সেপ্টেম্বর মামলার নথিসহ (সিডি) সশরীরে হাইকোর্টে হাজির থাকার নির্দেশ দেন। পরীমনিকে রিমান্ডে নেওয়ার বৈধতা প্রশ্নে হস্তক্ষেপ চেয়ে আইন ও সালিস কেন্দ্রের (আসক) করা এক আবেদনে এ আদেশ দেন হাইকোর্ট।

হাইকোর্টের আদেশে বলা হয়, তদন্ত কর্মকর্তার আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ম্যাজিস্ট্রেট দ্বিতীয় ও তৃতীয় দফা রিমান্ড মঞ্জুরের সময় কীভাবে নিশ্চিত হলেন যে, রিমান্ড মঞ্জুর করা প্রয়োজন? প্রথম চার দিন রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদের পর তদন্তকারী কর্মকর্তার কাছে এমনকি গুরুত্বপূর্ণ তথ্য ছিল যে তাঁকে দ্বিতীয় ও তৃতীয় দফা রিমান্ডে নিতে হবে?

আদালত বলেন, তদন্ত কর্মকর্তা চাইল আর তাতেই কীভাবে সংবিধান ও দেশের অন্যান্য আইন লঙ্ঘন করে দ্বিতীয় ও তৃতীয় দফা রিমান্ড মঞ্জুর করে দিলেন মহানগর ম্যাজিস্ট্রেট এটা বুঝে আসে না।

এর আগে গত ২৬ আগস্ট একই হাইকোর্ট বেঞ্চ পরীমনির জামিন প্রশ্নে রুল জারি করে আদেশ দেন। পয়লা সেপ্টেম্বর রুলের ওপর শুনানির দিন ধার্য করা হয়।

এই রুল বিচারাধীন থাকা অবস্থায় ঢাকা মহানগর দায়রা জজ আদালত ৩১ আগস্ট পরীমনির জামিন মঞ্জুর করে আদেশ দেন। এরপর ১ সেপ্টেম্বর কাশিমপুর মহিলা কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে মুক্তি পান পরীমনি।

গত ৪ আগস্ট রাতে বনানীর বাসা থেকে পরীমনি ও তার সহযোগী দীপুকে আটক করে র‍্যাব। এ সময় পরীমনির বাসা থেকে বিভিন্ন মাদক জব্দ করা হয়।

পরদিন ৫ আগস্ট মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে পরীমনি ও তার সহযোগী আশরাফুল ইসলাম দুপুর বিরুদ্ধে বনানী থানায় মামলা করা হয়। এ মামলায় তিন দফা রিমান্ডে নেয় সিআইডি। রিমান্ড শেষে গত ২১ আগস্ট পরীমনিকে কারাগারে পাঠানো হয়।

মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনের মামলায় আজ বুধবার পরীমনিকে হাজিরার তারিখ। মামলার তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের দিন ধার্য রয়েছে আজ।

নিউজ হান্ট/ম

সর্বশেষ