বংশালের ‘রংবাজ’

337

বিশেষ প্রতিবেদক: এক রিকশাচালককে পিটিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হওয়ার পর পুলিশের জালে ধরা পড়েছেন অভিযুক্ত ব্যক্তি। আটকের পর তার পরিচয় পাওয়া গেছে। নাম সুলতান আহমেদ। বাসা পুরান ঢাকার বংশালে। তার আচরণ দেখে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ব্যবহারকারীরা তাকে বংশালের ‘রংবাজ’ উপাধি দিচ্ছেন।

তার নাম যেমন সুলতান, তেমনি এলাকায়ও প্রভাবশালী। স্থানীয় বাড়িওয়ালা। তবে ‘রংবাজী’ করে শেষ পর্যন্ত রক্ষা পেলেন না।

গণমাধ্যমের কাছে পাঠানো বিবৃতিতে পুলিশ জানিয়েছে, রিকশাওয়ালাকে মারধরের ভিডিওর সূত্র ধরে ওই প্রভাবশালী সুলতানকে আটক করা হয়। নিজের এলাকা বংশাল থেকেই আটক করা হয় বলে জানিয়েছেন পুলিশের মি‌ডিয়া অ্যান্ড পাব‌লিক রি‌লেশন্স বিভাগের এআইজি মো. সো‌হেল রানা।

পুলিশের ওই কর্মকর্তা জানান, একজন সংবাদকর্মী বাংলাদেশ পুলিশের মিডিয়া অ্যান্ড পাবলিক রিলেশন্স উইংকে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের একটি ভিডিও লিংক পাঠান। সেই ভিডিওতে দেখা যায়, মঙ্গলবার (৪ মে) বেলা আনুমানিক দেড়টার দিকে রাজধানীর বংশালে এক ব্যক্তি এক রিকশাওয়ালাকে সজোরে থাপ্পড় মারছেন। তার নির্যাতনের একপর্যায়ে রিকশাওয়ালা মাটিতে পড়ে যান এবং জ্ঞান হারান। পাশ থেকে লোকজন এগিয়ে আসেন।

ভিডিওটি দেখামাত্র মিডিয়া অ্যান্ড পাবলিক রিলেশন্স বিভাগ ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বংশাল মো. শাহীন ফকিরকে নিপীড়নকারী লোকটিকে খুঁজে বের করে দ্রুত আইনের আওতায় আনতে নির্দেশ দেন। এর প্রেক্ষিতে ওসি বংশালের নেতৃত্বে একটি টিম অভিযুক্ত ব্যক্তিকে খুঁজে বের করে দ্রুততম সময়ের মধ্যে আটক করে।

সুলতানের বিরুদ্ধে ‘উপযুক্ত আইনি’ পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে বলেও জানান এআইজি মো. সো‌হেল রানা।

ভিডিওতে মারধরের সময়কার কথাবার্তা শুনে বোঝা যায়, রিকশা দাঁড় করানো নিয়ে দুজনের মধ্যে সামান্য কথা কাটাকাটি হয়। এসময় সুলতান আহমেদ ক্ষিপ্ত হয়ে রিকশাওয়ালকে থাপ্পড় মারতে থাকেন। থাপ্পড়ের পাশাপাশি অশ্রাব্য ভাষায় গালিগালাজ করেন।

ভিডিওতে আরও দেখা যায়, মার খেয়ে রিকশাওয়ালা যখন মাটিতে পড়ে যান, তখন আশপাশের মানুষ ধর-ধর বলে চিৎকার করছেন। এসময় রিকশাওয়ালাকে আবার নিজেই মাটি থেকে টেনে তোলার চেষ্টা করেন সুলতান আহমেদ।

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন

নিউজ হান্ট/আরকে

পূর্ববর্তী নিবন্ধদুর্বৃত্তের গুলিতে প্রাণ গেল কবিরাজের
পরবর্তী নিবন্ধময়লা ফেলা নিয়ে দ্বন্দ্ব, প্রতিপক্ষের হামলায় ব্যবসায়ী নিহত