ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেটের সর্বোচ্চ দাম নির্ধারণ করে দিল বিটিআরসি

12

দেশের সব অঞ্চলের জন্য ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেটের দাম নির্ধারণ করে দিয়েছে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি)।

‘এক দেশ, এক রেট’ স্লোগানের এই ঘোষণায় রবিবার বলা হয়েছে, ৫ এমবিপিএস প্যাকেজের সর্বোচ্চ মূল্য ৫০০ টাকা।

দেশের বিভিন্ন অঞ্চলের সরবরাহকারীরা এত দিন অনেক বেশি দামে ইন্টারনেট দিয়েছেন। উপজেলা পর্যায় তো বটেই, ঢাকার বিভিন্ন এলাকায়ও এর থেকে বেশি দাম রাখতে দেখা যায়।

বিটিআরসি জানিয়েছে, দ্বিতীয় প্যাকেজের মূল্য হবে মাসিক ৮০০ টাকার মধ্যে, এর গতি থাকবে ১০ এমবিপিএস এবং তৃতীয় প্যাকেজের গতি ২০ এমবিপিএস, দাম হবে মাসিক ১ হাজার ২০০ টাকার মধ্যে।

বিটিআরসির হিসাব অনুযায়ী দেশে গত মার্চ শেষে ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেটের সংযোগ সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৯৮ লাখ। করোনাকালে এ সংখ্যা উল্লেখযোগ্য হারে বেড়েছে। এক বছর আগেও সংযোগ সংখ্যা ১৮ লাখ কম ছিল।

ইন্টারনেট সেবাদাতাদের দাবি, একটি সংযোগের বিপরীতে অন্তত চারজন ব্যবহারকারী রয়েছেন। ওদিকে মোবাইল অপারেটরদের তারহীন ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর সংখ্যা ১০ কোটি ৫৬ লাখ।

ইন্টারনেটের তুলনামূলক দামের হালনাগাদ তথ্য উপস্থাপনকারী যুক্তরাজ্যভিত্তিক ওয়েবসাইট কেব্‌লডটইউকে গতকাল দেখা যায়, বাংলাদেশ ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেটের দামের দিক দিয়ে বিশ্বে ৫৮তম। অর্থাৎ, ৫৭টি দেশে দাম বাংলাদেশের চেয়েও কম। এ দেশে মাসে ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট সংযোগের গড় দাম ৩১ ডলারের কিছু বেশি, যা বাংলাদেশি মুদ্রায় প্রায় ২ হাজার ৬০০ টাকা। ভারতে একই দর ১৪ ডলারের নিচে।

পূর্ববর্তী নিবন্ধমৃত্যু কমেছে, বেড়েছে শনাক্ত
পরবর্তী নিবন্ধচলমান লকডাউন ১৬ জুন পর্যন্ত বাড়িয়ে প্রজ্ঞাপন