ব্রিটেনে ভ্যাকসিন প্রাপ্তিতে বাংলাদেশি ও পাকিস্তানিদের হার সর্বনিম্ন

6

ইংল্যান্ডের সব নৃগোষ্ঠীর মধ্যে বাংলাদেশি ও পাকিস্তানি ব্যাকগ্রাউন্ডের লোকদের করোনাভাইরাস ভ্যাকসিন প্রাপ্তির হার সর্বনিম্ন।

পাকিস্তানি ব্যাকগ্রাউন্ডের লোকদের মধ্যে যারা ৭০’র বেশি বয়সী তাদের ৮২.৪ শতাংশ ভ্যাকসিনের দ্বিতীয় ডোজ পেয়েছেন। পাশাপাশি বাংলাদেশি ব্যাকগ্রাউন্ডের লোকদের ভ্যাকসিন পাওয়ার এই হার ৮২.৭। হোয়াইট ব্রিটিশদের হিসাবে এই ৯৬.৩ শতাংশ। অন্যান্য হোয়াইটদের হার ৯৪.৯ শতাংশ। আর ভারত

এশিয়ানদের মধ্যে সবার উপরে আছে ভারতীয়রা। তাদের ভ্যাকসিন পাওয়ার হার ৯৪.৩ শতাংশ। আর চীনাদের এই হার ৯৩.৪ শতাংশ। মিশ্র নৃগোষ্ঠীর ক্ষেত্রে এই হার ৯২.৭ শতাংশ। অন্যান্য ৯২ শতাংশ।

দেশটির জাতীয় পরিসংখ্যান অফিস (ওএনএস) থেকে এই তথ্য পাওয়া গেছে। ১৫ মার্চের আগে প্রাপ্ত প্রথম ডোজ ভ্যাকসিনের উপর ভিত্তি করে এই পরিসংখ্যান তৈরি করা হয়েছে বলে জানায় ইভিনিং স্ট্যান্ডার্ড।

তবে ভ্যাকসিনের দ্বিতীয় ডোজ দেওয়া বা পাওয়ার জন্য সবাইকে পর্যাপ্ত সময় দেওয়া হবে বলে জানানো হয়েছে।

দেশটিতে ৯ মে থেকে শুরু হয়েছে ভ্যাকসিনের দ্বিতীয় ডোজের প্রয়োগ।

পরিসংখ্যানে দেখা যাচ্ছে, ভ্যাকসিন পাওয়ার ক্ষেত্রে ব্ল্যাকদের হার ৮৪ শতাংশ। এর মধ্যে আবার হিসেব করলে ক্যারিবিয়ান ব্ল্যাকদের হার ৮৭ শতাংশ।

ওএনএস জানিয়েছে- প্রথম ডোজ টিকা দেওয়ার হার এই দুটি (বাংলাদেশ-পাকিস্তান) গোষ্ঠীর জন্য সবচেয়ে কম ছিল, তবে দ্বিতীয় ডোজের হার পাকিস্তানি ও বাংলাদেশি ব্যাকগ্রাউন্ডের লোকদের মধ্যে আগের তুলনায় কিছুটা বেশি।

ইভিনিং স্ট্যান্ডার্ড জানায়, ভ্যাকসিনের দ্বিতীয় ডোজ পাওয়ার ক্ষেত্রে ধর্মীয় অনুষঙ্গও কাজ করছে।

পরিসংখ্যানে দেখা যাচ্ছে, ধর্মীয় হিসাবে সবচেয়ে বেশি ভ্যাকসিন পেয়েছে জিউস বা ইহুদী সম্প্রদায়ের লোকেরা। ৯৬.৯ শতাংশ হারে পেয়েছে তারা। দ্বিতীয়স্থানে খ্রিষ্টান, তাদের হার ৯৬.২ শতাংশ। আর নন-রিলিজিওনরা পেয়েছে ৯৫.৮ শতাংশ। এভাবে হিন্দু সম্প্রদায় ৯৫.৪ শতাংশ, ধর্ম উল্লেখ করেনি এমন লোকদের ৯৫.২ শতাংশ, শিখ ৯৪.৩ শতাংশ, অন্যান্য ৯৩.৯ শতাংশ, বৌদ্ধ ৯৩.৩ শতাংশ এবং মুসলিমদের সর্বনিম্ন ৮৪.৭ শতাংশ ভ্যাকসিন পেয়েছে।

নিউজ হান্ট/আরকে

পূর্ববর্তী নিবন্ধ১৩,৯৮৭ কোটি টাকার সম্পূরক বাজেট পাস
পরবর্তী নিবন্ধবাগেরহাটে চায়ের দোকানের পেছনে মিললো নবজাতক