ভারতের বিপক্ষে আত্মবিশ্বাসী বাংলাদেশ, তবে বড় চ্যালেঞ্জ ‘রক্ষণে’

11
বাংলাদেশ দলের সহকারী কোচ স্টুয়ার্ট ওয়াটকিস। ফাইল ছবি

আফগানিস্তানের সাথে ১-১ গোলে ড্র করার পর আত্মবিশ্বাসে ভরপুর জামাল ভুইয়ারা। আফগানদের আটকাতে পারলেও ভারতের বিপক্ষে কঠিন পরীক্ষা দিতে হবে বাংলাদেশকে এমনটি বলছেন সহকারী কোচ স্টুয়াট ওয়াটকিস। অতীতে ভারতে কাজ করার অভিজ্ঞতা থেকে জানালেন, ভারতকে সামলাতে হলে আটকাতে হবে তাদের গতিময় ফরোয়ার্ডদের।

২০১৯ সালের অক্টোবরে কলকাতায় ভারতের বিপক্ষ ড্র করেছিল বাংলাদেশ। ফিরতি লড়াই এবার দোহায়।

২০১৪-১৫ মৌসুমে আইলিগে ভারত এফসির কোচ ছিলেন ওয়াটকিস। সে সময় দেশটির ফুটবলারদের কাছ থেকেই দেখেছেন তিনি। সেই অভিজ্ঞতা থেকে তিনি জানালেন, ভারতের আই লিগে আমি এক বছরের মতো কাজ করেছি। তাই ওদের খেলোয়াড় সম্পর্কে আমার ভালো ধারণা আছে। ওদের আক্রমণের খেলোয়াড়রা গতিময়। ওদেরকে নিয়ে আমাদের খুব সতর্ক থাকতে হবে। নিজেদের পরিকল্পনায় অটুট থাকতে হবে। ক্যাম্পে সবাই খুশি, সবাই আশাবাদী, সবাই ম্যাচের দিকে তাকিয়ে আছে।

আফগানদের বিপক্ষে প্রথমার্ধে তেমন সুবিধা করতে না পারলেও দ্বিতীয়ার্ধে নিজেদের গুছিয়ে নিয়েছিল জামালরা। আফগানদের বিপক্ষে ফুটবলাররা নিজেদের সামর্থ্যের সব টুকু দিয়েছে ঠিক সেভাবে যদি ভারতের বিপক্ষে দিতে পারে তবেই ভাল কিছু সম্ভব বলে মনে করেন ওয়াটকিস। তিনি আরো বলেন,

“আফগানিস্তানের বিপক্ষে যেমন খেলেছি, যদি সেই মানের ফুটবল খেলতে পারি, তাহলে ফল পাওয়ার ব্যাপারে আমরা আত্মবিশ্বাসী। তবে এটা খুব, খুব কঠিন একটা ম্যাচ হবে। ভারতীয় দলে কয়েকজন খুব ভালো খেলোয়াড় রয়েছে।”

আফগানদের বিপক্ষে যে গোলটি হজম করেছিল সেটা বাম দিক থেকে আক্রমণ হয়েছিল, আর সেই দিকের দায়িত্বে ছিলেন রহমত মিয়া। মূলত রহমত মিয়ার ভূলের কারনেই গোল হজম করেছিল বাংলাদেশ। তবে ভারতের বিপক্ষে আর কোনো ভুল করতে চান না এই ডিফেন্ডার। রক্ষণে মনোযোগের বিষয়ে রহমত বলেন,

“লক্ষ্য রাখতে হবে, বড় দলের বিপক্ষে আমরা রক্ষণে যেন কোনো ভুল না করি। রক্ষণ যেন জমাট রাখার চেষ্টা করি। বড় দলের বিপক্ষে এটাই হবে আমাদের জন্য সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ। আর যেহেতু ওদের ফরোয়ার্ড লাইনটা ভালো থাকে। ওরা বল দ্রুত এগিয়ে নেয়। তাই আমাদের আঁটসাঁট থাকাটা খুব গুরুত্বপূর্ণ।”

এর আগে ভারতের মাটিতে ড্র করেছে বাংলাদেশ। এবার নিরপেক্ষ ভেন্যু থেকেও পয়েন্ট পাওয়া সম্ভব বলে জানালেন রহমত মিয়া। এ বিষয়ে বলেন,

“ভারতের আক্রমণভাগ, ওদের শক্তি-দুর্বলতা সম্পর্কে আমরা জানি। ভারতের বিপক্ষে আমরা কীভাবে ভালো করতে পারি, সেটা কোচরা আমাদের দেখাচ্ছেন। আশা করি, আমরা ভালো খেলে পয়েন্ট নিয়ে আসব।”

আগামী ৭ই জুন কাতারের দোহায় বাংলাদেশ সময় রাত ৮ টায় লড়বে বাংলাদেশ ও ভারত।

নিউজ হান্ট/ইস

পূর্ববর্তী নিবন্ধবিশ্বে করোনায় মৃত্যু ৩৭ লাখ ৩৫ হাজার ছাড়িয়েছে
পরবর্তী নিবন্ধরাজশাহী মেডিকেলের করোনা ইউনিটে আরো ৬ জনের মৃত্যু