ভিএফএক্স নিয়ে সমালোচনার জবাব দিলেন অনন্ত জলিল

12

সম্প্রতি চলচ্চিত্র অভিনেতা ও প্রযোজক অনন্ত জলিল অভিনীত দিন দ্য ডে সিনেমার মোশন পিকচার ও ট্রেইলার মুক্তি পেয়েছে। সেখানে অতি নিম্নমানের ভিএফএক্স ব্যবহারের অভিযোগ এনে সমালোচনার ঝড় তুলেছেন নেটিজেনরা। কয়েকদিন এ নিয়ে সমালোচনার হওয়ার পর এ বিষয়ে পূর্ণাঙ্গ ব্যাখ্যা দিয়েছে অনন্ত জলিলের প্রতিষ্ঠান মুনসুন ফিল্মসের মিডিয়া ম্যানাজার। সেটি ফেসবুকে পোস্ট করেছেন অনন্ত জলিল।

পোস্টটি হলো-
”VFX / মোশন পোস্টার নিয়ে কিছু কথা।।
ইরানে দিন দ্যা ডে ছবির পোস্ট প্রডাকশন হচ্ছে।
যে ট্রেইলারটা আপনারা দেখেছেন এখানে যে আ্যনিমেশনের কাজ গুলো করা হয়ছে সেটা আমাদের দেশের স্টুডেন্টরা করেছে।
অনন্ত জলিল বাংলাদেশের চলচ্চিত্রে প্রথম VFX ব্যবহার করেছেন।

অনন্ত জলিলের সিনেমার আগে আপনারা কখনই বাংলাদেশের চলচ্চিত্রে VFX এর ব্যবহার দেখেননি।
অনেকেই আমাদেরকে ইনবক্স ও কমেন্ট করছিলেন যে বাংলাদেশে অনেকেই VFX ও গ্রাফিক্স ডিজাইন এর ভালো কাজ জানেন , তাদেরকে সুযোগ দেয়ার জন্য অনুরোধ করেছিলেন।

এই কারনে আমরা ফ্যান ক্লাবে পোষ্ট করি যে, আমাদের দেশের যারা পোস্টার/VFX ডিজাইনার আছে তারা যেন আমাদের সাথে যোগাযোগ করেন।

এখানে ৭২০ জন এপ্লাই করেন। তাদের মধ্যে ১২ জন আ্যনিমেশন VFX মোশন পোস্টার করেন।
বাংলাদেশের চলচ্চিত্রে আমরাই প্রথম মোশন পোস্টার আপনাদের মাঝে উপস্হাপন করি। এর আগে কখনোই বাংলাদেশের সিনেমায় কেউই মোশন পোস্টার আপনাদেরকে আজ পর্যন্ত দেখায় নাই।

আমাদের প্রপার অফিশিয়াল ট্রেলার প্রকাশ পাবে ইরান থেকে আসার পর। ছবিটা কোরবানির ঈদে মুক্তি পাবে।তখন দেখবেন আ্যনিমেশন কাকফিল্মস

নিজের দেশ এবং দেশের স্টুডেন্টদের ছোট করবেন না।অনন্ত জলিল ছাড়া বাংলাদেশে কেউ পোষ্টারে আ্যনিমেশনের কাজ আনেনি, ডিজিটাল ছবি আনেনি।

অনন্ত জলিল বাংলা সিনেমায় প্রথম Dolby Digital 5.1 সাউন্ড এর ব্যবহার করেছেন, এবার 7.1 Dolby Atmos ব্যবহার করবেন। শুরুটা করাটা ইমপরটেন্ট।

আগামীতে বাংলাদেশের স্টুডেন্টরা যেন মোশন পোস্টার আ্যনিমেশন এর কাজ করতে পারে, এপ্রিশিয়েট করা শিখুন।

অনন্ত জলিলের হলিউড এর টেকনেশিয়ান দ্বারা ছবি করার যোগ্যতা রাখে। কিন্তু উনি চায় দেশের স্টুডেন্টদের নিয়ে কাজ করতে দেশে কে ডেভলপ করতে।

ইরান থেকে পোষ্ট প্রডাকশনের পর ফাইনাল ট্রেলার তখন আমরা ছাড়ব তখন দেখা যাবে ।
বাংলাদেশে আজ পর্যন্ত সিনেমার মোশন পোস্টার বানানো দেখেছেন ?
আমরাই প্রথম শুরু করেছি ।

সুতরাং গালগপ্প না করে কাজ করে দেখান।”

নিউজ হান্ট/কেএইচ