মেডিকেল ভর্তিযুদ্ধে সোয়া লাখ পরীক্ষার্থী

10
দেশের সরকারি ও বেসরকারি মেডিকেল কলেজে এমবিবিএস প্রথম বর্ষের (২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষ) ভর্তি পরীক্ষা আজ। সকাল ১০টা থেকে বেলা ১১টা পর্যন্ত সারাদেশের ১৯টি কেন্দ্রের ৫৫টি ভেন্যুতে ১০০ নম্বরের নৈর্ব্যক্তিক প্রশ্নে একযোগে এ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।
দেশে বর্তমানে সরকারিভাবে পরিচালিত মেডিকেল কলেজের সংখ্যা ৩৭টি। এগুলোতে মোট আসন সংখ্যা ৪ হাজার ৩৫০টি। এ বছর ভর্তি পরীক্ষায় এক লাখ ২২ হাজার ৮৭৪ ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থী অংশ নেবেন। সে হিসাবে এ বছর প্রতি আসনে লড়বেন ২৮ জন।
মহামারি নিয়ন্ত্রণে সরকার অর্ধেক যাত্রী নিয়ে গণপরিবহন চালানোর নির্দেশনা দিয়েছে। এ জন্য শুক্রবার সকালে পরিবহন সংকট দেখা দিতে পারে বলে ভর্তি পরীক্ষার্থীদের সতর্ক করেছে ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি)। বৃহস্পতিবার (১ এপ্রিল) ডিএমপির অতিরিক্ত উপকমিশনার (এডিসি) ইফতেখায়রুল ইসলাম জাগো নিউজকে বিষয়টি নিশ্চিত করেন।
তিনি বলেন, করোনা পরিস্থিতিতে সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী গণপরিবহনে অর্ধেক যাত্রী বহন করায় পরিবহন সঙ্কট দেখা দিতে পারে। পরিস্থিতি বিবেচনায় শুক্রবার মেডিকেল পরীক্ষার্থীদের সকাল ৮টার মধ্যে নিজ নিজ কেন্দ্রে উপস্থিত থাকার জন্য অনুরোধ করা হলো।
মহামারি করোনাভাইরাস সংক্রমণের অব্যাহত ঊর্ধ্বগতিতে পরীক্ষার্থী ও অভিভাবকরা কিছুটা আতঙ্কগ্রস্ত থাকলেও প্রয়োজনীয় স্বাস্থ্যবিধি মেনে সুষ্ঠুভাবে পরীক্ষা গ্রহণের সার্বিক প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে স্বাস্থ্যশিক্ষা অধিদফতর।
অধিদফতরের পরিচালক (চিকিৎসাশিক্ষা) অধ্যাপক ডা. এ কে এম আহসান হাবিব বৃহস্পতিবার বিকেলে জাগো নিউজকে বলেন, এমবিবিএস ভর্তি পরীক্ষার সার্বিক প্রস্তুতি ইতোমধ্যে সম্পন্ন হয়েছে।
জানা গেছে, এমবিবিএস প্রথম বর্ষ ভর্তি পরীক্ষায় করোনা পরিস্থিতি বিবেচনায় নিয়ে প্রতিটি কেন্দ্রে একটি করে আইসোলেশন কক্ষের ব্যবস্থা রাখা হচ্ছে। শুধু তাই নয়, এবারই প্রথম পরীক্ষা কেন্দ্রে অসুস্থ পরীক্ষার্থীদের জরুরি চিকিৎসা প্রদানে অক্সিজেন সিলিন্ডারসহ অন্যান্য প্রাথমিক চিকিৎসার ব্যবস্থা রাখা হচ্ছে।
করোনাভাইরাসের সংক্রমণরোধে প্রত্যেক পরীক্ষার্থীকে মাস্ক পরে পরীক্ষা কেন্দ্রে আসতে হবে এবং এক ঘণ্টা পরীক্ষার পুরো সময় মাস্ক পরে থাকতে হবে। ইতোমধ্যে মাস্ক পরে আসার বিষয়টি পরীক্ষার প্রবেশপত্রে উল্লেখ করা আছে। তবুও কেউ ভুল করে মাস্ক পরিধান করে না আসলে পরীক্ষা কেন্দ্র থেকে মাস্ক সরবরাহেরও ব্যবস্থা রাখা হচ্ছে।
পরীক্ষার্থীদের সঙ্গে আসা অভিভাবকরা যেন শারীরিক দূরত্ব বজায় রেখে কেন্দ্রের বাইরে অবস্থান করতে পারেন, সে জন্য তাদের বসার ব্যবস্থাও সংশ্লিষ্ট কেন্দ্রের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তারা করবেন বলে জানা গেছে।
নিউজ হান্ট/ইস