যশোরে একদিনে সর্বোচ্চ শনাক্ত, তৎপর পুলিশ

36

যশোর থেকে এম.এইচ.উজ্জল: যশোরে কয়েকদিন ধরে করোনাভাইরাস সংক্রমণের হার বৃদ্ধি পেয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় জেলায় নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ১৬১ জন। পরীক্ষার তুলনায় এই হার ৩২.২ শতাংশ। এটিই এখন পর্যন্ত জেলায় সর্বোচ্চ শনাক্তের রেকর্ড। এছাড়া গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু হয়েছে এক জনের।

জেলা সিভিল সার্জনের মুখপাত্র ডা. রেহেনেওয়াজ জানিয়েছেন, এদিন আমরা যবিপ্রবি, খুমেক ও এন্টিজেন টেস্টের মোট ৫৫৩টি নমুনার রিপোর্ট পেয়েছি। তার মধ্যে যবিপ্রবির (গতকালের দ্বিতীয় ধাপ ও আজকের প্রথম ধাপে প্রকাশিত) ৪৭৩টি নমুনায় ১২২, খুলনা মেডিকেলের ৫টির মধ্যে ২টি এবং ৬৯টি অ্যান্টিজেন টেস্ট করে ৩৩টি নমুনাতে করোনা পজিটিভ মিলেছে।

বরাবরের মত এ সময়েও সর্বোচ্চ ১০৫ জন শনাক্ত হয়েছে সদর উপজেলাতে। এছাড়া শার্শায় ৩০, মনিরামপুরে ৫, ঝিকরগাছায় ৫, কেশবপুরে ২, চৌগাছায় ১ জন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন।

এ নিয়ে জেলায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়ালো ৭৪২৮ জনে। তারমধ্যে ৬৬২৩ জন সুস্থ হয়েছেন। গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে সিরাজুল ইসলাম নামের ৮০ বছরের এক বৃদ্ধ মারা গেছেন। তিনি অভয়নগরের বাসিন্দা ছিলেন।

সংক্রমণ ঠেকাতে যশোরের পুলিশ সদস্যরা বিভিন্ন রকম কার্যক্রম পরিচালনা করে যাচ্ছে। যশোরের পুলিশ সুপার জনাব প্রলয় কুমার জোয়াদারের নির্দেশনায় করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে সরকার ঘোষিত নির্দেশনা বাস্তবায়নে ও সর্বসাধারণকে করোনা সংক্রমণ হতে আরও বেশি সচেতন করতে জেলা পুলিশের প্রতিটা ইউনিট কাজ করছে।

সোমবার সকালে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার, “ক” সার্কেল মোহাম্মদ বেলাল হোসাইনের নেতৃত্বে জেলা পুলিশের একটি টিম কোতয়ালী মডেল থানাধীন যে সকল এলাকায় করোনা সংক্রমণের হার বেশি সেই এলাকায় সর্বসাধারণের অবাধ চলাচল নিয়ন্ত্রণে কঠোর নজরদারিতে রেখেছে। একই সাথে আরও বেশি সচেতনতা বৃদ্ধি ও জনসমাগম ঠেকাতে বিভিন্ন এলাকার চায়ের দোকান এবং শপিংমলে নিয়মিত পুলিশি টহল ও সচেতনতামূলক মাইকিং চালিয়ে যাচ্ছে।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ বেলাল হোসাইন বলেন, আমরা যশোরের পুলিশ সুপারের নির্দেশনায় আমাদের প্রতিটি ইউনিটের দায়িত্বরত কর্মকর্তাগণ নিয়মিত কাজ করে যাচ্ছি। আমরা সংক্রমিত এলাকাটিতে অবাদ চলাচলে কিছুটা বিধি-নিষেধ এনেছি। এছাড়া সর্বসাধারণকে আরও বেশি স্বাস্থ্য সচেতন করতে নিয়মিত মাইকিং করে যাচ্ছি। এই সংক্রমণ যেন প্রকট আকার ধারণ না করে সেজন্য প্রতিনিয়ত পাড়া-মহল্লা, দোকান-পাট ও শপিংমলে তদারকি করছি।

নিউজ হান্ট/কেএইচ

পূর্ববর্তী নিবন্ধনাটোরে নতুন করে করোনায় আক্রান্ত ৩৫
পরবর্তী নিবন্ধ‘৬ দফার ভেতরেই স্বাধীনতার এক দফা নিহিত ছিল’