লকডাউনে চালু থাকবে শিল্প কলকারখানা

14

করোনা সংক্রমণ পরিস্থিতির কথা বিবেচনায় নিয়ে আগামী সোমবার থেকে সারা দেশে এক সপ্তাহের লকডাউন জারি করেছে সরকার।

তবে লকডাউনের মধ্যে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার শর্তে শিল্প-কলকারখানা চালু থাকবে বলে জানিয়েছেন জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন।

আজ শনিবার (৩ এপিল) এ কথা বলেন তিনি।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, লকডাউনের মধ্যে জরুরি সেবা দেয় এমন প্রতিষ্ঠান খোলা থাকবে। শিল্পকলকারখানাও খোলা থাকবে। শ্রমিকরা স্বাস্থ্যবিধি মেনে, ভিন্ন ভিন্ন শিফটিংয়ের মাধ্যমে কলকারখানায় কাজ করতে পারে।

তিনি বলেন, মানুষের চলাফেরা যাতে কমাতে পারি সেজন্য আমরা আপাতত এক সপ্তাহের জন্য লকডাউন দিচ্ছি। আমাদের জরুরি সেবা দেয়া প্রতিষ্ঠান, ডিসি অফিস, ইউএনও অফিস, ফায়ার সার্ভিসের অফিস, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনার অফিস, সংবাদপত্র অফিস- এই ধরনের অফিস খোলা থাকবে। এছাড়া সরকারি ও বেসরকারি অফিস-আদালত বন্ধ থাকবে। সব ধরনের মার্কেট বন্ধ থাকবে।

প্রয়োজনে লকডাউনের সময় বাড়তে পারে বলেও জানান মন্ত্রী।

২০২০ সালের মার্চে বাংলাদেশে প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হয়। করোনার প্রথম ঢেউ দক্ষতার সঙ্গে সামাল দিয়ে সারা বিশ্বে প্রশংসিত হয়েছিল বাংলাদেশ। সম্প্রতি করোনার দ্বিতীয় ঢেউ শুরু হওয়ার পর বাংলাদেশে করোনা সংক্রমণের হার বেড়ে গেছে। সংক্রমণের হার নিয়ন্ত্রণে রাখতে লকডাউন জারি করেছে সরকার।

নিউজ হান্ট/এনএইচ