শাল্লায় সরকারি দলের লোকেরা হামলা চালিয়েছিল: জাফরুল্লাহ

23

সুনামগঞ্জের শাল্লার নোয়াগাঁও গ্রামে সংখ্যালঘুদের বাড়িতে হামলা ও ভাঙচুরের ঘটনায় সরকারি দলের লোকদের দায়ী করেছেন গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ড. জাফরুল্লাহ চৌধুরী।

বৃহস্পতিবার (২৫ মার্চ) জনস্বাস্থ্য নগর হাসপাতালের মেজর হায়দার মিলনায়তনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এমন অভিযোগ করেন তিনি।

জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, ‘শাল্লায় সরকারি দলের লোকেরা হামলা চালিয়েছিল। মসজিদের মাইকে ঘোষণা দেয়া হয়েছে, মসজিদে কাদের কর্তৃত্ব থাকে, সরকারি দলের।’

গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা আরও বলেন, ‘প্রশাসনও সব জানতো। প্রশাসন তাদের আশ্বস্ত করে বলেছিল হামলা হবে না। তাই গ্রামবাসী পালিয়ে যায়নি। তবু হামলা হয়েছে। এই ঘটনা আমি খোঁজ নেয়ার চেষ্টা করেছি। কেন তারা ১৭ মার্চ হামলা করলো।’

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন গণসংহতি আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়কারী জোনায়েদ সাকি, ভাসানী অনুসারী পরিষদের মহাসচিব শেখ রফিকুল ইসলাম বাবলুসহ আরো অনেকে।

সংখ্যালঘুদের ওপর হামলা, নির্যাতন ও লুটপাটের প্রতিবাদ এবং অভিলম্বে দুষ্কৃতিকারীদের গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান তারা।

ফেসবুকে উস্কানিমূলক পোস্ট দেওয়ার অভিযোগে গত বুধবার সকালে শাল্লা উপজেলার নোয়াগাঁও গ্রামে হামলা চালিয়ে ৫টি মন্দির ও ৮৮টি বাড়িঘর ভাঙচুর, লুটপাট ও আসবাবপত্র তছনছ করে হামলাকারীরা।

এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার রাতে শাল্লা থানা পুলিশের এসআই আব্দুল করিম বাদী হয়ে অজ্ঞাতপরিচয় কয়েকশজনের বিরুদ্ধে মামলা করেন। এ ছাড়া হবিবপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান বিবেকানন্দ মজুমদার বাদী হয়ে ৮০ জনকে আসামি করে মামলা করেন।

নিউজ হান্ট/ম