শিশু নির্যাতন: সহকারী প্রকৌশলীর বিচার চায়  হিউম্যান রাইটস ডিফেন্ডার ফোরাম

27

রুহুল আমিন বাবু(বাগেরহাট)প্রতিনিধি: বাগেরহাটে সহকারী প্রকৌশলীর বিরুদ্ধে শিশু গৃহ পরিচারিকা নির্যাতনের ঘটনার তথ্যানুসন্ধান ও বিচারের দাবী জানিয়েছেন হিউম্যান রাইটস ডিফেন্ডার ফোরাম।

রবিবার সকালে বাগেরহাট হিউম্যান রাইটস ডিফেন্ডার ফোরাম বাগেরহাট জেলা শাখার সদস্যরা বাগেরহাট সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ মোছাব্বেরুল হক ও এলজিইডির নির্বাহী প্রকৌশলী জিএম মুজিবর রহমানের সাথে স্বাক্ষাৎ করে বিষয়টি সম্পর্কে অবহিত করেন এবং তারা কি পদক্ষেপ নিয়েছেন এ বিষয়ে কথা বলেন।

এ সময় এইচ আর ডিএফএর সভাপতি মোঃ কামরুজ্জামান, কমিটির সদস্য এ্যাড. লুনা সিদ্দিকী, মুখার্জী রবিন্দ্র নাথ, মমতাজ খানম, শামিমা সুলতানা সোহেলী, সাংবাদিক ইয়ামিন আলী উপস্থিত ছিলেন। হিউম্যান রাইটস ডিফেন্ডার ফোরাম এর সদস্যবৃন্দ শিশু আফসানার উপর নির্যাতন ও শিশু দিয়ে গৃহ পরিচালিকার কাজ করানোর অপরাধে উপ-সহকারী প্রকৌশলী রেখা খাতুনের  বিচারের দাবি জানান।

বাগেরহাট সদর উপজেলা কার্যালয়ের উপ-সহকারী প্রকৌশলী রেখা খাতুনের (৪০) আফছানা আক্তার (০৮) নামের এক শিশু গৃহ পরিচালিকাকে নির্যাতনের অভিযোগ উঠে। বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী অফিসার জানতে পেরে আফছানাকে উদ্ধার করে অসহায় শিশুটির সুন্দর জীবন পরিচালনার জন্য সরকারী শিশু পরিবারে রাখার ব্যবস্থা করেন।

এ সময় নির্যাতনের শিকার আফছানা আক্তার সাংবাদিকদের জানান, তার পিতা মারা যাওয়ার পর মা তাকে ছেড়ে অন্যত্র বিয়ে করে। তার সাথে কোন প্রকার যোগাযোগ রাখেনা। পিতা মাতা না থাকায় সৎ ভাইয়ের সংসারে অনেক কষ্ট করে থাকতে হত। প্রায় দেড় বছর আগে সে যখন ৩য় শ্রেণীতে পড়ে তখন তার এক ভাবি এক হাজার টাকা বেতনে রেখা খাতুনের বাড়িতে ঝিয়ের কাজে দেয়। কাজে দেওয়ার পর থেকে সে কখনো স্কুলে যেতে পারে নাই।

ওই ভাবী তাকে কোন টাকা না দিয়ে প্রতি মাসের বেতনের ১ হাজার টাকা সে নিয়ে যায়। কাজে দেওয়ার পর থেকেই বাসার মালিক রেখা তাকে দিয়ে বাসার সব ধরনের কাজ করাতো। সে কোন কাজে একটু ভুল করলেই মারধর করত ঠিকমত খাবার দিত না। সে তার সাথে ভাল ব্যবহারও করত না বকাবকি করত । আফছানার শরীর,ঘাড়ে ,পায়ে আঘাতের চিহ্ন এবং ডান হাতে আগুনের ছ্যাকার চিহ্ন রয়েছে। আফছানা বলেন আমি আর কখনো আন্টিদের বাসায় যাব না। আমি এখন যেখানে আছি এখানে থাকতে চাই।