সবার মনে ছড়িয়ে পড়ুক খুশি

9

করোনাভাইরাস মহামারির মধ্যে এসেছে আরেকটি ঈদ। মানসিক, অর্থনৈতিকসহ অনেক ধরনের সীমাবদ্ধতায় কাটছে এবারের ঈদ। এক মাস রোজা পালন শেষে আনন্দের ঈদ সবার মনে খুশি ছড়িয়ে দিক। বয়ে আনুক অনাবিল আনন্দ। হাসি ফুটুক সবার মুখে। ঈদ মোবারক।

করোনা মোকাবিলায় ও সংক্রমণ বিস্তার রোধে সরকারের নির্দেশনায় এবার খোলা মাঠে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হচ্ছে না। ঈদ জামাত হবে মসজিদের ভেতরে শারীরিক দূরত্ব বজায় রেখে ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে। বাংলাদেশের পাশাপাশি এই অঞ্চলের বহু দেশে আজ উদযাপন হচ্ছে ঈদুল ফিতর।

একদিন আগে ঈদ উদযাপন করেছে সৌদি আরবসহ মধ্যপ্রাচ্যে ও ইউরোপ, আমেরিকার বিভিন্ন দেশ।

গত বছরের ঈদ এবং এবারের ঈদের সঙ্গে তার আগের সময়ের ঈদ উদযাপনের রয়েছে আকাশ-পাতাল ফারাক। সংক্রামক ব্যাধির কারণে অনেকটাই ভিন্নভাবে উদযাপন করা হচ্ছে এই ঈদ। মানতে হচ্ছে স্বাস্থ্যবিধি। স্বাস্থ্যবিধি মেনেই যেতে হচ্ছে ঈদের জামাতে। সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিতের জন্য বিরত থাকতে হচ্ছে কোলাকুলি ও মুসাহাফার মতো আবেগ ঘনিষ্ঠ সমাদর থেকেও।

চলমান লকডাউনে আন্তঃজেলা পরিবহন বন্ধ রেখেছে সরকার। এক জেলা থেকে অন্য জেলায় না যেতে সরকারের পক্ষ থেকে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। কিন্তু পরিবার-পরিজনের সঙ্গে ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি করতে সরকারের সে নির্দেশনা উপেক্ষিত হয়েছে।

ঈদের তিন দিন আগে থেকেই ঢাকা ছেড়ে যেতে মানুষের উপচে পড়া ভিড় ছিল ফেরিঘাটে। পণ্যবাহী ও জরুরি যানসহ অন্যান্য যানচলাচলের জন্য ফেরি চলাচল করলে সেখানে বাড়ির পথে যাওয়া মানুষের ভিড় ছিল মাত্রাতিরিক্ত। নানান চড়াই উৎরাই পেরিয়ে, বাড়তি ভাড়া গুণে বাড়ি পৌঁছেছে মানুষ।

প্রতিবারের মতো এবারও ঈদ উপলক্ষে দেশবাসীকে ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও বিরোধীদলীয় নেতা রওশন এরশাদ। এছাড়া জাতীয় দৈনিক পত্রিকাগুলো ঈদ সংখ্যা ছাড়াও বিশেষ ক্রোড়পত্র বের করেছে। সরকারি ও বেসরকারি টেলিভিশনে প্রচারিত হচ্ছে বিশেষ অনুষ্ঠান।

নিউজ হান্ট/এসএম

পূর্ববর্তী নিবন্ধবায়তুল মোকাররমে ঈদের দ্বিতীয় জামাত
পরবর্তী নিবন্ধস্বাস্থ্যবিধি মেনে মসজিদে মসজিদে ঈদের নামাজ