হেফাজতের হরতালের প্রভাব পড়েনি বাগেরহাটে, যানচলাচল স্বাভাবিক

19

বাগেরহাট প্রতিনিধি: হেফাজতের ডাকা সকাল-সন্ধ্যা হরতালের কোন প্রভাব পড়েনি বাগেরহাটে। রবিবার সকাল থেকে বাগেরহাটের অভ্যন্তরীণ ১৬টি রুটে যান চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে। বাগেরহাট কেন্দ্রীয় বাসস্ট্যান্ড থেকে সকল ঢাকাসহ বিভিন্ন স্থানে দূরপাল্লার বাস ছেড়ে যেতে দেখা গেছে। যাত্রীদের উপস্থিতিও ছিল চোখে পড়ার মত।

জেলা শহরসহ বিভিন্ন হাটবাজারের দোকানপাট খোলা ছিল। হরতাল বাস্তবায়নে হেফাজত ইসলামের কোন নেতাকর্মীকে মাঠে দেখা যায়নি। তবে বিশৃঙ্খলা এড়াতে বাগেরহাট জেলার বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ এলাকায় পুলিশ সতর্ক অবস্থানে ছিল ।

হেফাজত ইসলামকে রাজপথে প্রতিহত করতে আওয়ামীলীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা শহরের বিভিন্ন স্থানে মোটরসাইকেল মহড়া দেয়। পরে বাগেরহাট জেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে খানজাহান আলী মাজার মোড়ে এক পথসভা অনুষ্ঠিত হয়।

পথসভায় বাগেরহাট জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট হেমায়েত উদ্দিন ভূঁইয়া, অর্থ সম্পাদক তালুকদার আব্দুল বাকি, জেলা আওয়ামী যুবলীগের আহ্বায়ক সরদার নাসির উদ্দিন, ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সরদার নাহিয়ান আল সুলতান ওশান, শ্রমিকলীগের সাধারণ সম্পাদক খান আবু বক্কর সিদ্দিক সাথে ছিলেন।

বাগেরহাট-সোনাডঙ্গা যাত্রীবাহী বাসের ষ্ট্যাটার সিরাজুল ইসলাম বলেন, আমরা কোন হরতাল মানি না। বাগেরহাটে কোন হরতাল নেই। সকাল থেকে বাগেরহাট থেকে খুলনা রুটে বাস চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে। যাত্রীর পরিমানও অন্যান্য দিনের মত রয়েছে।

বাগেরহাট বাস শ্রমিক ইউনিয়ন ও জেলা শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদক খান আবুবকর সিদ্দিক বলেন, বাগেরহাটে হেফাজতের হরতালের কোন প্রভাব পড়েনি। আমাদের বাস শ্রমিক ও চালকরা যানচলাচল স্বাভাবিক রেখেছে।বাগেরহাট থেকে ছেড়ে যাওয়া কোন পরিবহন কোথাও কোন বাঁধারও সম্মুখীন হয়নি।

বাগেরহাট আন্ত:জেলা বাস মিনিবাস মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক আব্দুল বাকি তালুকদার বলেন, হরতালে পরিবহণ সেক্টরে কোন প্রভাব পড়েনি। সকালে দুরপাল্লার বাস ঢাকার উদ্দেশ্যে ছেড়ে গেছে।

বাগেরহাটের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মীর মো. সাফিন মাহমুদ বলেন, হেফাজত ইসলামের ডাকা হরতালে যাতে কোন অপ্রীতিকর ঘটনা না ঘটে সেজন্য জেলাজুড়ে পুলিশ সতর্ক রয়েছে। মহাসড়কসহ জেলার গুরুত্বপূর্ণ এলাকায় টহল বাড়ানো হয়। জেলার কোথাও কোন অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি।

নিউজ হান্ট/কেএইচ