হেফাজত ইস্যুতে সরকারকে আরও কঠোর হতে হবে: জাফরুল্লাহ

14

গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ও ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেছেন, সাম্প্রদায়িক উসকানিমূলক কথা বলার জন্য হেফাজতে ইসলামের যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা মামুনুল হকের বিচার হওয়া উচিত। তিনি ইসলামের কথা বলে নোংরামি করেছেন। রিসোর্টে থাকা নারী তার স্ত্রী কি না, তা তদন্ত করতে হবে।

আজ সোমবার (৫ এপ্রিল) সাংবাদিকদের এ কথা বলেন জাফরুল্লাহ চৌধুরী।

তিনি বলেন, হেফাজত নেতাদের দুর্নীতির তদন্ত ও বিচার হওয়া উচিত। হেফাজত ইস্যুতে সরকারকে আরও কঠোর হতে হবে।

জাফরুল্লাহ বলেন, হেফাজতের কর্মকাণ্ড কোনোভাবেই সমর্থন করি না। তবে তাদের মিটিং-মিছিল করাটাকে সমর্থন করি। এটা তাদের মৌলিক অধিকার। ব্রাহ্মণবাড়িয়ার ঘটনায় তৃতীয় রাষ্ট্রের ইন্ধন রয়েছে।

তিনি বলেন, আমরা ১৪ সদস্যের একটি টিম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করি। সেখানে স্থানীয় জনগণ, আওয়ামী লীগ, পুলিশ ও হেফাজতের বক্তব্য শুনেছি এবং দেখেছি। আমাদের কাছে মনে হয়েছে যে, এ হামলার সঙ্গে তৃতীয় রাষ্ট্রের ইন্ধন রয়েছে।

তিনি আরও বলেন, রেলস্টেশনে আগুনের ঘটনা সাতদিন আগে ঘটলেও ৩ এপ্রিল আমরা সেখানে গিয়ে দেখেছি আগুন জ্বলছে। এটা কেন? এটা কাকে দেখাতে চান? তাহলে এটা কি হেফাজত ইসলাম নাকি জনগণ নাকি অন্য কোনো তৃতীয় রাষ্ট্র এখানে জড়িত?

জাফরুল্লাহ বলেন, রাজনীতি এখন আমলা ও ব্যবসায়ীদের হাতে চলে গেছে। রাজনীতি রাজনীতিবিদদের করতে দিন। সেখানকার এমপি একজন আমলা। তার কোনো রাজনৈতিক কর্মী নেই। তার রয়েছে পুলিশ ও হেলমেট বাহিনী।

নিউজ হান্ট/এনএইচ