৫৩ টন চিনি গেল কোথায়?

9

কুষ্টিয়ার চিনিকলের গুদামে হিসাবের চেয়ে ৫৩ টন চিনি কম পাওয়ায় স্টোর কিপারকে বরখাস্ত করা হয়েছে। এ ঘটনায় একটি তদন্তে গঠন করেছে কর্তৃপক্ষ।

আজ শনিবার চিনিকলের মহাব্যবস্থাপক (জিএম) কল্যাণ কুমার দেবনাথ গণমাধ্যমকে তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, ‘এ ঘটনা তদন্তে চার সদস্যের কমিটি গঠন করা হয়েছে।’

গত মৌসুমে উৎপাদন বন্ধ থাকা কুষ্টিয়া সুগার মিলের গুদামে ১১০ টনের মতো চিনি মজুদ ছিল। গত বৃহস্পতিবার মিলের কর্মকর্তারা স্টক রেজিস্টারের সঙ্গে মজুদ চিনির পরিমান মেলাতে গিয়ে দেখতে পান সেখানে প্রায় ৫০ থেকে ৫২ টন চিনি কম আছে। এ ঘটনায় তাৎক্ষণিক গুদাম কর্তকর্তা ফরিদুল ইসলামকে সাময়িক বরখাস্ত ও তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

চিনি গায়েবের ঘটনায় সুষ্ঠু তদন্ত দাবি করেছে সিবিএ।

চিনি কলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক জিএম (প্রশাসন) হাবিবুর রহমান বলেন, ‘এই বিষয়টি জানার পরে আমরা তাৎক্ষনিকভাবে ব্যবস্থা নিয়েছি এবং তদন্ত কমিটি গঠন করেছি। পাশাপাশি সদর দপ্তরেও জানিয়েছি। পরবর্তীতে এ বিষয়ে তদন্ত কমিটি এবং সদর দপ্তর প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।’

নিউজ হান্ট/আরকে

পূর্ববর্তী নিবন্ধদেশে কিশোর গ্যাংয়ের অস্তিত্ব থাকবে না: র‌্যাব মহাপরিচালক
পরবর্তী নিবন্ধ‘মানুষ বিলুপ্ত হয়ে গেলে তাতে প্রকৃতির কিছু যায় আসবেনা’