রবিবার, ডিসেম্বর ৫, ২০২১

কানাডার ব্রিটিশ কলম্বিয়ায় ভয়াবহ বন্যা, জরুরি অবস্থা জারি

আরও পড়ুন

তীব্র ঝড়বৃষ্টিতে কানাডার পশ্চিমাঞ্চলীয় প্রদেশ ব্রিটিশ কলম্বিয়ায় ভয়াবহ বন্যা ও ভূমিধসের ঘটনা ঘটেছে। এতে মৃত্যুর সংখ্যা আরও বাড়বে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। পরিস্থিতি মোকাবেলায় জরুরি অবস্থা জারি করা হয়েছে।

বার্তা সংস্থা রয়টার্সের প্রতিবেদনে এ তথ্য জানা গেছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়, বুধবার দেশটির কেন্দ্রীয় সরকার বড় ধরনের সহায়তার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে।

প্রবল বৃষ্টি ও ভূমিধসে বহু সড়ক মারাত্মক ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ায় পার্বত্য অঞ্চলীয় বেশ কয়েকটি ছোট শহর বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। এ পর্যন্ত তিন জন নিখোঁজ রয়েছেন। কর্তৃপক্ষ একজনের মৃত্যুর কথা নিশ্চিত করলেও সংখ্যাটি আরও বাড়বে বলে মনে করা হচ্ছে।

কানাডার জননিরাপত্তা মন্ত্রী মাখোঁ মেনদিচিনো জানিয়েছেন, প্রশান্ত মহাসাগর উপকূলের এ প্রদেশটিতে প্রায় ১৮ হাজার লোক বাস্তুচ্যুত হয়েছেন।

প্রদেশটির মুখ্যমন্ত্রী জন হোরগ্যান বলেছেন, “আসছে দিনগুলোতে আরও প্রাণহানির কথা নিশ্চিত করতে হবে বলে ধারণা করছি আমরা।”

প্রাকৃতিক এ দুর্যোগকে ‘৫০০ বছরের মধ্যে একবার ঘটা’ ঘটনা বলে বর্ণনা করেছেন তিনি।

বুধবার এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি জানান, স্থানীয় সময় ‍দুপুর ১২টা থেকে জরুরি অবস্থা কার্যকর হতে শুরু করবে।

ভ্রমণ বিধিনিষেধ লোকজনকে বন্যাকবলিত রাস্তাগুলো থেকে দূরে রাখবে আর নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্য ‘ওইসব এলাকায় পৌঁছে যাবে যেখানে এগুলোর প্রয়োজন’, বলেছেন তিনি।

তিনি বলেন, “এমন কোনো ব্যক্তি নেই যে ক্ষতিগ্রস্ত হয়নি। মানুষের কারণে হওয়া জলবায়ু পরিবর্তনে কারণে এই ঘটনাগুলোর সংখ্যা বাড়ছে।”

বন্যা ও ভূমিধসের কারণে দেশটির বৃহত্তম বন্দর ভ্যাঙ্কুভার বিচ্ছিন্ন হয়ে আছে। এতে বন্দরটি থেকে বিশ্বব্যাপী পণ্য সরবরাহ বিঘ্নিত হচ্ছে।

এই দুর্যোগকে ‘ভয়ানক, ভয়ানক বিপর্যয়’ উল্লেখ করে কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো তা কাটিয়ে উঠতে ব্রিটিশ কলম্বিয়াকে তার সরকার সব ধরনের সাহায্য করবে বলে জানিয়েছেন।

নিউজ হান্ট/এএস

সর্বশেষ