সোমবার, ডিসেম্বর ৬, ২০২১

ডিসেম্বরের শেষ সপ্তাহে ষষ্ঠ জনশুমারি ও গৃহগণনার পরিকল্পনা

আরও পড়ুন

সরকার আগামী ২৪ ডিসেম্বর থেকে ৩০ ডিসেম্বর পর্যন্ত ষষ্ঠ জনশুমারি ও গৃহগণনা পরিচালনার পরিকল্পনা করেছে। আজ রোববার (১৪ নভেম্বর) পরিকল্পনামন্ত্রী এমএ মান্নান সংসদে এ তথ্য জানিয়েছেন।

লিখিত উত্তরে মন্ত্রী বলেন, জনশুমারি ও গৃহগণনা সম্পূর্ণ ডিজিটাল ব্যবস্থার মাধ্যমে পরিচালিত হবে।

জনশুমারি ও গৃহগণনা প্রতি এক দশকে একবার পরিচালিত হয়। এটি সামগ্রিক জনসংখ্যা, এর গঠন, কর্মী সংখ্যা, ঘনত্ব, আবাসন, অর্থনৈতিক এবং অন্যান্য নীতি প্রণয়নে গুরুত্বপূর্ণ। এছাড়া আদমশুমারি অন্যান্য আর্থ-সামাজিক সূচকগুলোর ওপর সম্পূর্ণ তথ্য সরবরাহ করে।

২০১১ সালে সর্বশেষ জনশুমারি ও গৃহগণনা হয়েছিল, তখন দেশের জনসংখ্যা ছিল ১৫.১৭ কোটি এবং বার্ষিক জনসংখ্যা বৃদ্ধির হার ছিল ১.৩৭ শতাংশ।

বাংলাদেশ অর্থনৈতিক পর্যালোচনা-২০২১ অনুযায়ী, বর্তমানে আনুমানিক জনসংখ্যা ১৬.৮ কোটি।

বাংলাদেশে ১৯৭৪ সালে প্রথম জনশুমারি অনুষ্ঠিত হয়। পরবর্তীতে, ১৯৮১, ১৯৯১, ২০০১ এবং ২০১১ সালে জনশুমারি অনুষ্ঠিত হয়।

২০১৯ সালের অক্টোবরে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি (একনেক) জনশুমারি ও গৃহগণনার জন্য ১ হাজার ৭৬১ কোটি টাকার একটি প্রকল্প অনুমোদন করে। তবে, করোনা মহামারির কারণে নির্ধারিত সময়সূচী অনুযায়ী তা শুরু হয়নি।

নিউজ হান্ট/আরকে

সর্বশেষ