সোমবার, ডিসেম্বর ৬, ২০২১

তিন খাতে সম্পর্ক উন্নয়নে আগ্রহী মালদ্বীপ

আরও পড়ুন

বাংলাদেশের সঙ্গে শিক্ষা, স্বাস্থ্য ও পর্যটন খাতে দুই দেশের মধ্যকার সম্পর্ক উন্নয়নে আগ্রহী মালদ্বীপ। এছাড়া দুদেশের মধ্যে বাণিজ্য-বিনিয়োগসহ বিভিন্ন ক্ষেত্র সম্প্রসারিত করতে চায় দেশটি।

আজ মঙ্গলবার (২৩ নভেম্বর) সন্ধ্যায় রাষ্ট্রপতির সরকারি বাসভবন ও কার্যালয় বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন মালদ্বীপের ভাইস প্রেসিডেন্ট ফয়সাল নাসিম। তখনই এই আগ্রহের কথা জানান তিনি।

এসময় ফয়সাল নাসিম করোনা পরিস্থিতি মোকাবেলাসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে বাংলাদেশের উন্নয়ন ও অগ্রগতির ভূয়সী প্রশংসা করেন। র উপর গুরুত্বারোপ করেন তিনি।

এর আগে মালদ্বীপের ভাইস প্রেসিডেন্টকে বঙ্গভবনে স্বাগত জানান মো. আবদুল হামিদ। তিনি বলেন, বাংলাদেশ ও মালদ্বীপের মধ্যে চমৎকার দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক বিদ্যমান এবং ক্রমান্বয়ে বাণিজ্য-বিনিয়োগসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে তা সম্প্রসারিত হচ্ছে।

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশত বার্ষিকীর অনুষ্ঠানে যোগ দিতে মালদ্বীপের প্রেসিডেন্ট ইবরাহীম মোহম্মদ সোলিহর বাংলাদেশ সফরের বিষয়টিও উল্লেখ করেন রাষ্ট্রপতি। মো. আবদুল হামিদ বলেন, তার সফরের মাধ্যমে দুদেশের সম্পর্ক নতুন উচ্চতায় পৌঁছেছে। তিনি আশা করেন, মালদ্বীপের ভাইস প্রেসিডেন্টের এ সফরের মাধ্যমে বাংলাদেশের সঙ্গে বিদ্যমান দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক আগামীতে আরো সম্প্রসারিত হবে।

জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে বাংলাদেশ ও মালদ্বীপ উভয় ঝুঁকিপূর্ণ দেশ উল্লেখ করে রাষ্ট্রপতি আরো বলেন, জলবায়ু পরিবর্তনের বিরূপ প্রভাব মোকাবিলা ও দূর্যোগ ব্যবস্থাপনায় দুই দেশ একযোগে কাজ করতে পারে।

বাসসের খবরে বলা হয়, এ সময় উপস্থিত ছিলেন রাষ্ট্রপতির কার্যালয়ের সচিব সম্পদ বড়ুয়া, সামরিক সচিব মেজর জেনারেল এস এম সালাহ উদ্দিন ইসলাম, রাষ্ট্রপতির প্রেস সচিব মো. জয়নাল আবেদীন এবং সচিব (সংযুক্ত) মো. ওয়াহিদুল ইসলাম খান।

এর আগে গতকাল সোমবার পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেনের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন মালদ্বীপের ভাইস প্রেসিডেন্ট ফয়সাল নাসিম। এদিন তিনি বাংলাদেশ থেকে বিশেষজ্ঞ পেশাজীবি ও চিকিৎসক নিয়োগ এবং দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য বাড়াতে চট্টগ্রাম ও মালে নগরীর মধ্যে সরাসরি শিপিং লাইন প্রতিষ্ঠা করার বিষয়ে গভীর আগ্রহ প্রকাশ করেন। সাক্ষাতে মালদ্বীপে বিভিন্ন ক্ষেত্রে বিশেষ করে চিকিৎসা শিক্ষা, প্রশিক্ষণ প্রদান এবং দক্ষতা উন্নয়নের লক্ষ্যে প্রয়োজনীয় সহায়তা প্রদানের বিষয়ে আশ্বাস দেন মোমেন। এ ছাড়া বাংলাদেশের জনগণের জন্য ২ লাখ ডোজ কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন উপহার দেয়ায় মালদ্বীপ সরকারকে ধন্যবাদও জানান তিনি।

এছাড়া, দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের ব্যাপক বিষয় পর্যালোচনা এবং আঞ্চলিক ও আন্তর্জাতিক বিষয়ে সহযোগিতা আরো জোরদার করার উপায় নিয়ে আলোচনা ও মতামত বিনিময় করেন এ দুই নেতা। পাশাপাশি দক্ষিণ এশিয়ার দুটি দেশের মধ্যে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক আরো গভীর করার ওপর গুরুত্ব আরোপ করেন। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে আজ এসব তথ্য জানানো হয়।

নিউজ হান্ট/আরকে

সর্বশেষ