মঙ্গলবার, মে ১৭, ২০২২

দৌলতদিয়া ঘাটে দীর্ঘ যানজট, চরম ভোগান্তিতে যাত্রীরা

আরও পড়ুন

ঈদের ছুটি শেষে জীবিকার তাগিদে রাজধানী ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন জেলায় ফিরতে শুরু করেছে লাখো মানুষ।শনিবার ভোর থেকেই কর্মস্থলে ফেরাদের চাপে দৌলতদিয়া ঘাট এলাকাজুড়ে যানজট তৈরি হয়েছে।

কর্মস্থলে ফেরা মানুষের বাড়তি চাপে সৃষ্ট যানজট দৌলতদিয়া জিরো পয়েন্ট থেকে জমিদার ব্রীজ পর্যন্ত প্রায় ৮ কিলোমিটার এলাকা ছাড়িয়ে যায়। এতে ঘাটে পারাপারের অপেক্ষায় আটকে পড়েছে সহস্রাধিক যানবাহন। ভোগান্তিতে পড়েছে কর্মস্থলে ফেরা মানুষেরা। তাছাড়া দুই শতাধিক ব্যাক্তিগত গাড়ির চাপ রয়েছে। প্রতিটা যানবাহনকে দশ থেকে বারো ঘণ্টা অপেক্ষা করতে হচ্ছে।

যানজটে আটকে থাকা যাত্রীরা জানান, পর্যাপ্ত ফেরি চলাচল না করায় ও ঘাট কর্তৃপক্ষের সমন্বয়হীনতার কারণেই এই যানজট সৃষ্টি হয়েছে।

প্রচণ্ড গরমের মধ্যে দীর্ঘসময় অপেক্ষায় থেকে ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন চালক ও যাত্রীরা। বেলা ১১টায় ঘাট এলাকায় কথা হয় সাতক্ষীরা থেকে আসা ঈগল পরিবহনের যাত্রী রুমা আক্তারের সঙ্গে। তিনি বলেন, “ রাত ১২টায় ফেরি ঘাট এলাকায় এসেছি। সারা রাত ঘুম নেই। শুধু দুইটা রুটি খেয়ে রাত কাটিয়েছি। গরমে ছোট বাচ্চাটা ছটফট করছে।”

বিআইডব্লিউটিসি দৌলতদিয়া ঘাট শাখার ব্যবস্থাপক প্রফুল্ল চৌহান জানান, শুক্রবার দুপুর থেকেই ঈদ উদ্‌যাপন শেষে কর্মস্থলে ফেরা যাত্রী ও যানবাহনের চাপে ঘাট এলাকায় যানজট দীর্ঘ হতে শুরু করে। পরিস্থিতি স্বাভাবিক করতে ২১টি ফেরি দিয়ে পারাপার করা হচ্ছে।

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন করপোরেশনের (বিআইডব্লিউটিসি) দৌলতদিয়া ফেরি ঘাট শাখার সহকারী ব্যবস্থাপক (বাণিজ্য) সিহাব উদ্দিন জানান, আজ সকাল থেকে যানবাহনের চাপ তীব্র আকার ধারণ করেছে। আমরা সর্বোচ্চ চেষ্টা করছি যাতে মানুষের ভোগান্তি কম হয়।

সর্বশেষ