সোমবার, নভেম্বর ২৯, ২০২১

নওগাঁয় স্বতন্ত্র প্রার্থীর বিরুদ্ধে নৌকা প্রার্থীর সংবাদ সম্মেলন

আরও পড়ুন

নওগাঁ থেকে কামাল উদ্দিন টগর: নওগাঁ জেলার মান্দা উপজেলার ৬নং মৈনম ইউনিয়নে স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. ইয়াচিন আলী রাজার আনারস মার্কার প্রচারণায় অবৈধ ভাবে অভিনব-কায়দায় ভোট কেনার অভিযোগে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী মৈনম ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বাবু সামন্ত কুমার সরকারের আয়োজনে বুধবার দুপুরে মৈনম বাজার ব্যাংকের মোড় ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয়ে এই সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

এ সময় সামন্ত কুমার সরকার লিখিত বক্তব্যে বলেন, আমি ৬ নং মৈনম ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীকের মনোনীত প্রার্থী। আমার নির্বাচনী প্রচার, প্রচারণার শুরু থেকে ইয়াচিন আলী রাজা এবং তার নিকট-আত্মীয়স্বজন, কর্মী-সমর্থকদের বিভিন্নভাবে নির্বাচনী প্রচারণায় বাঁধা, ভয়ভীতি এবং হুমকি, ধামকি দিয়ে আসছে।

সামন্ত কুমার সরকার বলেন, এ বিষয়ে স্থানীয় মান্দা থানায় অভিযোগ ও সাধারণ ডায়রি করা হয়েছে। বর্তমানে ইয়াচিন আলী (রাজা) তার ছেলে আলামিন ও আল মামুন প্রকাশ্যে মৈনম জাফরপুর আদর্শ গ্রামের প্রায় অর্ধশতাধিক পরিবারের প্রায় ১৬০ জন ভোটারদের কাছে ৩০০ টাকা এবং মিনিস্টার কোম্পানির ছাতা দিয়ে ভোট কিনছেন। এ বিষয়কে কেন্দ্র করে ইউনিয়নের বিভিন্ন পাড়া, মহল্লায় আমার কর্মী, সমর্থকদের সাথে স্বতন্ত্র প্রার্থী ইয়াচিন আলী (রাজা) এবং তার কর্মী-সমর্থকদের সাথে হট্টগোল-গণ্ডগোল মারামারি হচ্ছে। কখন যে এলাকায় একটি ভয়াবহ সংঘর্ষের রূপ নেবে তা বলা যাচ্ছে না।

তিনি বলেন, এ বিষয়ে মান্দা উপজেলা নির্বাচন কমিশন অফিস, মান্দা রিটার্নিং অফিসার, ইউএনও এবং মান্দা থানায় লিখিতভাবে অভিযোগ করা হয়েছে। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে অনুরোধ করছি অনতিবিলম্বে যথাযথ আইনগত পদক্ষেপ গ্রহণ করুন।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন, নওগাঁ জেলা আওয়ামীলীগের সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক ব্রহানী সুলতান মাহমুদ গামা, সাবেক মান্দা উপজেলা আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য এ.বি.এম. হাসান রিপু, মৈনম ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মোঃ আফাজ উদ্দীন মন্ডল, সিনিয়র সহসভাপতি শ্রী সমন্ত, শ্রী প্রানোনাথ, যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মোয়াজ্জেম হোসেন মিলনসহ আওয়ামী লীগের অঙ্গসংগঠনের বিভিন্ন নেতাকর্মীরা।

এ বিষয়ে মান্দা থানার অফিসার ইনচার্জ এর সাথে মোবাইলে কথা হলে তিনি জানান, আমরা বিষয়টি তদন্ত করেছি, এ তদন্ত রিপোর্ট মান্দা উপজেলার মৈনমের দায়িত্বপ্রাপ্ত রিটার্নিং অফিসার বরাবর দিয়েছি, তিনি এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবেন।

মান্দা উপজেলার মৈনম ও কাশোপাড়া ইউনিয়নের দায়িত্বে থাকা রিটার্নিং অফিসারের সাথে মোবাইলে কথা হলে তিনি জানান, এখনো তদন্ত রিপোর্ট আমার হাতে এসে পৌঁছে নাই, রিপোর্টটি পেলে অবশ্যই আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

নিউজ হান্ট/কেএইচ

সর্বশেষ