মঙ্গলবার, ডিসেম্বর ৭, ২০২১

নির্ধারিত সময়ে হজের প্রস্তুতি সম্পন্ন করার নির্দেশ

আরও পড়ুন

ধর্ম প্রতিমন্ত্রী মো. ফরিদুল হক খান বলেছেন, আগামী হজ সুন্দরভাবে পরিচালনার লক্ষ্যে সংশ্লিষ্ট সকল মন্ত্রণালয়, বিভাগ, দপ্তর ও সংস্থাকে নির্ধারিত সময়ের মধ্যে নিজ নিজ কার্যক্রম সম্পন্ন করতে হবে।

তিনি আজ রোববার (২১ নভেম্বর) ধর্ম মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে পবিত্র হজ সুন্দরভাবে পরিচালনার লক্ষ্যে পূর্ব প্রস্তুতি গ্রহণের লক্ষ্যে হজ কার্যক্রমে সম্পৃক্ত সংশ্লিষ্ট অংশীজনদের সমন্বয়ে অনুষ্ঠিত আন্তঃমন্ত্রণালয় বৈঠকে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘কোভিড -১৯ করোনা ভাইরাস মহামারী পরিস্থিতির কারণে ২০২০ এবং ২০২১ সালে সৌদি আরবের বাহিরের দেশ থেকে হজযাত্রীগণ সৌদি আরব গমন করতে পারেননি। বর্তমানে কোভিড-১৯ পরিস্থিতির উন্নতি হওয়ায় পবিত্র ওমারহ কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে। বাংলাদেশসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে বিপুল সংখ্যক ওমরাহ যাত্রী সৌদি সরকার প্রদত্ত স্বাস্থ্যবিধি ও অন্যান্য শর্তাবলি পালন সাপেক্ষে ওমরাহ পালন করছেন।

তিনি বলেন, আশা করা যায়, সার্বিক পরিস্থিতি অনুকূলে থাকলে চাঁদ দেখা সাপেক্ষে আগামী ৮ জুলাই পবিত্র হজ অনুষ্ঠিত হবে এবং বাংলাদেশী হজযাত্রীরা হজে অংশ গ্রহণ করবেন। এ বিষয়ে সৌদি-বাংলাদেশ হজ চুক্তির পর বিস্তারিত বলা সম্ভব হবে। তবে আগামী হজ সুন্দরভাবে পরিচালনার লক্ষ্যে হজের অনেক কার্যক্রমের প্রস্তুতি এখন থেকেই শুরু করতে হবে।

প্রতিমন্ত্রী আন্তঃমন্ত্রণালয় বৈঠকে জানান, ধর্ম মন্ত্রণালয়ের অনুরোধে সৌদি সরকার বাংলাদেশ থেকে সিনোভ্যাক/ সিনোফার্মা টিকা গ্রহণকারী ওমরাহ যাত্রীরা বুস্টারডোজ ছাড়াই ওমরাহ্ পালন করতে পারবেন। বৈঠকে প্রাক-নিবন্ধনের বিদ্যমান অবস্থা, নিবন্ধিত হজযাত্রীদের বিদ্যমান অবস্থা, হজ প্যাকেজ, প্রাক নিবন্ধন ও নিবন্ধন কার্যক্রমের বর্তমান অবস্থা, ওষুধ ও চিকিৎসা সামগ্রী ক্রয়, পাসপোর্ট, রোড টু মক্কা ইনিশিয়েটিভ, বাংলাদেশ থেকে ওমরা পালনের জন্য সৌদি আরবে গমনকারী ব্যক্তিগণকে বুস্টার ডোজ প্রদান, হজ যাত্রীদের জন্য টিকা ক্রয়, ইলেকট্রনিক হেলথ প্রোফাইল, হজের কার্যক্রম বিষয়ে প্রচার- প্রচারণা, হজ এজেন্সি নবায়ন ও তালিকা প্রকাশসহ বিবিধ বিষয়ের করণীয় নির্ধারণ করা হয়।

ধর্ম মন্ত্রণালয়ের সচিব কাজী এনামুল হাসানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আন্তঃমন্ত্রণালয় বৈঠকে ধর্ম, স্বরাষ্ট্র, পররাষ্ট্র, বেসরকারি বিমান পরিবহন ও পর্যটন, স্বাস্থ্য, তথ্য, সিভিল এভিয়েশন, স্বাস্থ্য অধিদপ্তর, হজ অফিস, ঢাকা ও জেদ্দা, পাসপোর্ট, ন্যাশনাল টেলিকমিউনিকেশন মনিটরিং সেন্টার (এনটিএমসি), সোনালি ব্যাংক, ইসলামিক ফাউন্ডেশন ও হজ্জ এজেন্সিস এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (হাব) সহ বিভিন্ন মন্ত্রণালয়, বিভাগ, দফতর, সংস্থার প্রতিনিধিরা সভায় অংশগ্রহণ করেন।

নিউজ হান্ট/আরকে

সর্বশেষ