মঙ্গলবার, অক্টোবর ২৬, ২০২১

পদ্মায় ইলিশ শিকারের দায়ে ৬ জেলের জেল-জরিমানা

আরও পড়ুন

মুন্সীগঞ্জ থেকে মোঃ রুবেল ইসলাম তাহমিদ: মুন্সীগঞ্জের লৌহজংয়ের পদ্মা নদীতে অভিযান চালিয়ে ৬ জেলেকে আটক করে জেল জরিমানা দিয়েছে ভ্রাম্যমান আদালত। এদের মধ্যে একজনকে ১ মাসের জেল ও ৫ জনকে জমিরানা করা হয়। এ সময় ২টি ট্রলার ও ২০ হাজার মিটার কারেন্ট জাল জব্দ করা হয়।

মুন্সীগঞ্জের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট হাসিবুর রহমান বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় এই আদেশ দেন।

সিনিয়র উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা লৌহজং মো. আসাদুজ্জামান আসাদ জানান, বৃহস্পতিবার ভোর রাত ৩টা থেকে পদ্মার বিভিন্ন পয়েন্টে অভিযান চালায় ভ্রাম্যমান আদালত। অভিযানে উপস্থিত ছিলেন মুন্সীগঞ্জের নির্বাহী ম্যজিষ্ট্রেট হাসিবুর রহমান, আশরাফুল ইসলাম, লৌহজং উপজেলা নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ও ইউএনও মো. আব্দুল আউয়াল, সকাকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট কাউছার হামিদ।

অভিযান চলাকালে ৬ জন মা ইলিশ নিধনকারী জেলেকে আটক করা হয়। এসময় তাদের নিকট থেকে ২টি ট্রলার ও ২০ হাজার মিটার কারেন্ট জাল জব্দ করা হয়। পরে ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট হাসিবুর রহমান ৬ জনের এক জনকে ১ মাসের কারাদন্ড ও ২০০ টাকা জারিমানা এবং বাকী ৫ জনের প্রত্যেককে ৫ হাজার টাকা করে জরিমানা করে। এছাড়া আগুনে পুড়িয়ে বিনষ্ট করা হয় ২০ হাজার মিটার কারেন্ট জাল। ট্রলার ২টি জব্দ করা হয়।

লৌহজং উপজেলা সহকারী কমিশনার ভূমি ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট কাউছার হামিদ জানান, পদ্মায় মা ইলিশ রক্ষায় প্রশাসন কঠোর অবস্থানে রয়েছে। ৪ জন ম্যাজিষ্ট্রে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করছে। এছাড়া স্থানীয় বাজারগুলোতে ককশিট বাক্স ও বরফ বেচা কেনা নিষিদ্ধ করা হয়েছে। আমরা নিয়মিত অভিযান পরিচালনা করছি। দেশের অর্থকরী সম্পদ মা ইলিশ নিধনকারীদের কোন প্রকার ছাড়া দেয়া হবেনা।

উল্লেখ্য, ইলিশের প্রধান প্রজনন মৌসুম ৪ অক্টোবর থেকে ২৫ অক্টোবর পর্যন্ত এ ২২ দিন সারাদেশে ইলিশ মাছ আহরণ, পরিবহন, মজুদ, বাজারজাতকরণ, ক্রয়-বিক্রয় ও বিনিময় সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ করেছে সরকার।

নিউজ হান্ট/কেএইচ

সর্বশেষ