বুধবার, ডিসেম্বর ১, ২০২১

ভাসানীর মাজারে রেজা কিবরিয়া ও নুরের ওপর হামলার অভিযোগ

আরও পড়ুন

টাঙ্গাইলের সন্তোষে মওলানা আবদুল হামিদ খান ভাসানীর মাজারে শ্রদ্ধা জানাতে গিয়ে হামলার শিকার হয়েছেন বলে অভিযোগ করেছেন গণ অধিকার পরিষদের আহ্বায়ক রেজা কিবরিয়া, সদস্যসচিব ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) সাবেক সহসভাপতি (ভিপি) নুরুল হক এবং তার সহযোগীরা।

আজ বুধবার (১৭ নভেম্বর) এ হামলার ঘটনা ঘটে। আজ মাওলানা ভাসানীর ৪৫তম মৃত্যুবার্ষিকীতে শ্রদ্ধা জানাতে মাজারে গিয়েছিলেন গণ অধিকার পরিষদের নেতা-কর্মীরা।

জেলা ছাত্রলীগ ও যুবলীগ সমন্বিতভাবে এই হামলা চালিয়েছে জানিয়ে নুর সংবাদমাধ্যমকে বলেন, ‘মওলানা আবদুল হামিদ খান ভাসানীর ৪৫তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে তার মাজারে শ্রদ্ধা নিবেদন করতে গিয়েছিলাম। সেসময় আমার সঙ্গে দলের নেতা-কর্মীরাও ছিলেন। হঠাৎ আমাদের ওপর জেলা ছাত্রলীগ ও যুবলীগের সদস্যরা অতর্কিতে হামলা চালায়।’

‘আমাদের লক্ষ্য করে গুলি চালানো হয়েছে। আমার মাথায় ইট-পাটকেল পড়েছে। কতজন আহত হয়েছেন ঠিক বলতে পারছি না’, যোগ করেন তিনি।

নুর আরও বলেন, ‘পুলিশ আমাকে উদ্ধার করে টাঙ্গাইলের কাগমারী ফাঁড়িতে নিয়ে এসেছে। আমি এখন পুলিশের নিরাপত্তায় আছি।’

পরে গণ অধিকার পরিষদের যুগ্ম আহ্বায়ক শাকিলউজ্জামান মিডিয়ার কাছে দাবি করেন, ছাত্রলীগের হামলায় গণ অধিকার পরিষদের অন্তত ২৫ নেতা-কর্মী আহত হয়েছেন।

রেজা কিবরিয়া গণমাধ্যমকে বলেন, পরিকল্পিতভাবে তাদের ওপর হামলা করেছে ছাত্রলীগ। তারা নুরুল হককে লক্ষ করে আক্রমণ করেছিলেন। এতে নারীকর্মীসহ বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন। পুলিশ রক্ষা করার চেষ্টা করছিল, কিন্তু তারা বিভিন্ন কারণে পারেনি।

ছাত্রলীগের বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক নিবিড় পাল অভিযোগের বিষয়ে বলেন, শ্রদ্ধা জানাতে এসে তারা ছাত্রলীগ নেতা-কর্মীদের ওপর হামলা করেন। পরে ছাত্রলীগ নেতা-কর্মীরা তাদের হামলা প্রতিহত করেন। আলোচনায় আসার জন্য নুরুল হক পরিকল্পিতভাবে এই বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করেছেন।

টাঙ্গাইলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) সরওয়ার হোসেন এ বিষয়ে বলেন, গণ অধিকার পরিষদের নেতারা মাওলানা ভাসানীর মাজারে কাছাকাছি পৌঁছানোর পর পাল্টাপাল্টি ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। একপর্যায়ে রেজা কিবরিয়া ও নুরুল হকসহ গণ অধিকার পরিষদের নেতা-কর্মীদের পুলিশি নিরাপত্তায় ঘটনাস্থল থেকে সরিয়ে নেওয়া হয়।

নিউজ হান্ট/আরকে

সর্বশেষ