সোমবার, নভেম্বর ২৯, ২০২১

রাজনৈতিক সিদ্ধান্তে তেলের দাম বেড়েছে: জ্বালানি সচিব

আরও পড়ুন

জ্বালানি তেলের দাম বাড়ানোর সিদ্ধান্ত রাজনৈতিক বলে জানিয়েছেন জ্বালানি সচিব আনিছুর রহমান। তিনি বলেন, আমলারা এত বড় সিদ্ধান্ত নিতে পারেন না। তিনি বলেন, এই কাজটি আমরা করিনি। তেল আমদানি করা ছাড়া আমাদের উপায় ছিল না। আর তেলের দাম কমালেও পরিবহন নিয়ন্ত্রণ করা আমাদের পক্ষে সম্ভব নয়।

আজ বৃহস্পতিবার (১১ নভেম্বর) ফোরাম ফর এনার্জি রিপোর্টার্স অব বাংলাদেশ (এফইআরবি) আয়োজিত ওয়েবিনারে তিনি এসব কথা করেন। এফইআরবি চেয়ারম্যান অরুণ কর্মকারের সভাপতিত্বে সেমিনার সঞ্চালনা করেন নির্বাহী পরিচালক শামীম জাহাঙ্গীর।

সচিব বলেন, আমদানি করা তেলের মধ্যে ৭৩ ভাগই ডিজেল। আর অকটেন ও পেট্রোল খুবই কম আমদানি করা হয়। ফলে এই দুটির দাম বাড়ানোর কোনও পরিকল্পনা আমরা করিনি।

অযথা গুজব রটানোর দরকার নাই। এদিকে ডিজেলের তুলনায় কেরোসিনের ব্যবহার মাত্র ১ দশমিক ৬ ভাগ। কিন্তু মিশ্রণের কারণে সমন্বয় করতে গিয়ে দাম একই রকম করেই বাড়ানো হয়েছে।

তিনি জানান, বিপিসি জেট ফুয়েল, এইচএফও, এলপিজি নিয়মিত অ্যাডজাস্ট করছে। নিয়মিত ডিজেলের দাম কমানো-বাড়ানো হলে তো পরিবহনে কোনও পরিবর্তন আসবে না। এটা নিয়ন্ত্রণ আমাদের দায়িত্ব হলেও নেতাদের নানা দাবি, যাত্রীদের জিম্মি করে বেশি ভাড়া আদায় আমাদের নিয়ন্ত্রণ করা কঠিন।

আনিছুর রহমান বলেন, আন্তর্জাতিক বাজারে তেলের দাম কমে এলে সঙ্গে সঙ্গে সমন্বয় করা হবে। কিন্তু পরিবহনের বিষয়ে আমাদের কিছু করার নেই। আমরা বুঝতে পারছি, সাময়িকভাবে অর্থনীতিতে একটু চাপ পড়বে। কোভিড উত্তর রিকভারিতে একটু সমস্যা হবে। কিন্তু আমাদের উপায় ছিল না। আন্তর্জাতিক বাজারে সব পণ্যের দাম বেড়েছে। গ্যাসের পাইপের দামও বেড়েছে, আমরা অনেক প্রকল্প রিভাইস করেছি। সারের দামও বেড়েছে। একই অবস্থা এলএনজির ক্ষেত্রেও।

নিউজ হান্ট/আরকে

সর্বশেষ