সোমবার, মে ১৬, ২০২২

রাশিয়ার নতুন ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা

আরও পড়ুন

তীব্র দাবদাহের সতর্ক বার্তা ভারতে

এবার টুইটার কিনে নিলেন ইলন মাস্ক

ইউক্রেন যুদ্ধের প্রায় দুই মাসের মাথায় পারমাণবিক অস্ত্র বহনে সক্ষম একটি নতুন আন্তমহাদেশীয় ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্রের (আইসিবিএম) সফল পরীক্ষা চালানোর দাবি করেছে রাশিয়া।

রাশিয়ার পরমাণু অস্ত্রভাণ্ডারে নতুন সংযোজন এই ক্ষেপণাস্ত্রটি মস্কোর শত্রুদের চিন্তার খোরাক যোগাবে বলে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছেন প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন।

রাশিয়ার টেলিভিশনে বুধবার এই ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষার কথা বলা হয়। রাশিয়ার উত্তরপশ্চিমের প্লেসেৎস্ক কসমোড্রোম থেকে ক্ষেপণাস্ত্রটি উৎক্ষেপণ করা হয় এবং সেটি ফার ইস্টের কামচাৎকা উপদ্বীপে লক্ষ্যবস্তুতে আঘাত হানে।

‘সারমাত’ নামের এই ক্ষেপণাস্ত্রকে ‘বিশ্বসেরা’ বলে দাবি করেন রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। গতকাল বুধবার তিনি বলেন, ‘যারা আমাদের দেশকে হুমকি দেওয়ার চেষ্টা করে, তাদের দ্বিতীয়বার ভাবতে বাধ্য করবে এই ক্ষেপণাস্ত্র।’

গত কয়েক বছর ধরেই সারমাত ক্ষেপণাস্ত্র নিয়ে কাজ করছে রাশিয়া। তাই এর পরীক্ষা পশ্চিমাদের জন্য আকস্মিক কোনও খবর ছিল না। কিন্তু এমন একটি সময়ে এই ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা করা হল; যখন ইউক্রেইনে রুশ আগ্রাসনের কারণে পুরো বিশ্বের ভূরাজনীতিতে তীব্র উত্তেজনা বিরাজ করছে।

টেলিভিশনে পুতিন বলেছেন, ‘‘নতুন এই ক্ষেপণাস্ত্র সর্বোচ্চ কৌশলগত এবং প্রযুক্তিগত বৈশিষ্ট্য সম্পন্ন এবং এটি সব ধরনের আধুনিক ক্ষেপণাস্ত্র বিধ্বংসী প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা অতিক্রম করতে সক্ষম। বিশ্বে এটির সমকক্ষ আর কিছু নেই এবং দীর্ঘ সময়ে আসবেও না।”

“এই অনন্য অস্ত্রটি আমাদের সশস্ত্র বাহিনীকে যুদ্ধক্ষমতায় আরও বলীয়ান করবে, বহির্বিশ্বের হুমকি থেকে রাশিয়ার নিরাপত্তা নিশ্চিত করবে এবং যারা উন্মত্ত, আক্রমনাত্মক বক্তব্যের উত্তাপে আমাদের দেশকে হুমকি দেওয়ার চেষ্টা করছে তাদের জন্য চিন্তার খোরাক জোগাবে।’’

রাশিয়ার ন্যাশনাল ডিফেন্স ম্যাগাজিনের এডিটর ইন চিফ ইগর করোৎচেঙ্কো বার্তা সংস্থা আরআইএ-কে বলেন, এটা পশ্চিমাদের প্রতি রাশিয়ার বার্তা। রাশিয়া ও তার জনগণের নিরাপত্তায় কেউ হস্তক্ষেপ করলে মস্কো তার বিধ্বংসী জবাব দিয়ে যেকোনো দেশের ইতিহাসের সমাপ্তি টেনে দিতে পারে।

ইউএস কংগ্রেসনাল রিসার্চ সার্ভিসের তথ্যানুযায়ী, সরমাত একটি নতুন ধরনের ভারি আন্তঃমহাদেশীয় ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র। রাশিয়া আশা করছে, তারা এই ক্ষেপণাস্ত্রের প্রতিটিতে ১০টি ‍বা তার বেশি ওয়ারহেড মোতায়েন করতে পারবে।

সর্বশেষ