বুধবার, ডিসেম্বর ১, ২০২১

সাম্প্রদায়িক হামলার প্রতিবাদে খুবি শিক্ষক সমিতির মানববন্ধন

আরও পড়ুন

শারদীয় দূর্গাপুজা উদযাপনের সময় কুমিল্লা, চট্রগ্রাম, চাঁদপুর, নোয়াখালী, সিলেটসহ দেশের বিভিন্ন জেলায় প্রতিমা, পুজা মন্দির ও হিন্দু সম্প্রদায়ের বাড়িঘরে হামলা, ভাংচুর, লুটপাটের প্রতিবাদে খুলনায় মানববন্ধন ও প্রতিবাদ বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। বৃহস্পতিবার (২১ অক্টোবর) সকাল ১১টার সময় খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির উদ্যোগে বিশ্ববিদ্যালয়ের হাদী চত্বরে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয়।

কর্মসূচিতে একাত্মতা প্রকাশ করে বক্তব্য রাখেন উপাচার্য প্রফেসর ড. মাহমুদ হোসেন।তিনি বলেন, একাত্তরে সকল ধর্ম-বর্ণের মানুষের বসবাস উপযোগী দেশ হিসেবে বাংলাদেশকে স্বাধীন করতে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। তাঁর দূরদর্শী নেতৃত্বে স্বাধীন, সার্বভৌম ও অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠিত হয়। কিন্তু পঁচাত্তরের পনেরই আগস্ট বঙ্গবন্ধু হত্যার পর আবারও একাত্তরের পরাজিত শক্তি মাথাচাড়া দিয়ে ওঠে। তারা অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশকে সাম্প্রদায়িক করার অপচেষ্টায় লিপ্ত হয়। সেই সময়ের সরকার তাদেরকে মূল্যায়িত করে বিভিন্ন দেশে গুরুত্বপূর্ণ পদে প্রেরণ করে, গাড়িতে জাতীয় পতাকা তুলে দেয়। পরবর্তীতে বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ক্ষমতায় আসার পর বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের অসাম্প্রদার্য়িক বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠায় অগ্রণী ভূমিকা রাখেন।

শারদীয় দূর্গাপূজা চলাকালিন সময়ে কুমিল্লার নানুয়ার দীঘির পাড়ের একটি ঘনাকে কেন্দ্র করে যেভাবে পূজামন্দির, প্রতিমা, হিন্দু সম্প্রদায়ের মানুষের বাড়িঘর ভাংচুর ও হামলা করা হয়েছে তা কোন স্বাধীন দেশে হতে পারে না। এ ঘটনার সাথে জড়িদের আইনের আওতায় এনে শাস্তির ব্যবস্থা করা না গেলে এমন ঘটনা ঘটতেই থাকবে।

নিউজ হান্ট/আরকে

সর্বশেষ