বৃহস্পতিবার, জানুয়ারি ২০, ২০২২

স্ত্রীকে পিটিয়ে পুলিশের খবরে বাসা থেকে পালালেন মুরাদ

আরও পড়ুন

আলোচিত-সমালোচিত সাবেক তথ্য প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসানের বিরুদ্ধে মারধরের অভিযোগ করে জরুরি সেবা নম্বরে ফোন করে পুলিশে সহযোগিতা চান তার স্ত্রী ডা. জাহানারা এহসান। তারপরই মুরাদ হাসান বাসা থেকে পালিয়েছেন। এরপর মুরাদ হাসানের বিরুদ্ধে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতনের অভিযোগ এনে ধানমন্ডি থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন ডা. জাহানারা।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা পৌনে ৬টার দিকে ধানমন্ডি থানায় এসে ডা. মুরাদ হাসানের বিরুদ্ধে জিডি করেন তিনি। এর আগে জাতীয় জরুরি সেবা ৯৯৯ এ ফোন করে পুলিশের সহযোগিতা চান ডা. জাহানারা এহসান।

সাহায্যের আবেদনের পর পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) সাইফুল ইসলামের নেতৃত্বে একটি দল ১৫ নম্বর সড়কে তাদের বাসায় যান। মুরাদ হাসানের বাসা থেকে ফিরে সাইফুল ইসলাম বলেন, অভিযোগ পেয়ে নারী পুলিশসহ ১০ জনের একটি দল নিয়ে ওই বাসায় গিয়েছিলাম। এর আগেই মুরাদ হাসান বাসা থেকে বেরিয়ে যান।

তিনি বলেন, আমরা ডা. জাহানারাকে কান্নাকাটি করতে দেখি। ডা. জাহানারা ৯৯৯ নম্বরে ফোন করার সময় মুরাদ হাসান বাসায় ছিলেন বলে জেনেছি। পরে তিনি বেরিয়ে যান। তাদের দুই সন্তানও তাদের মায়ের ওপর নির্যাতনের কথা জানিয়েছে।

পুলিশ জানায়, কানাডায় ঢুকতে ব্যর্থ হওয়ার পর এতদিন মুরাদ হাসান তার ধানমন্ডির বাসায় আসেননি। গত ৮-৯ দিন ধরে তিনি এই বাসায় আছেন। এর মধ্যেই তিনি তার স্ত্রীর ওপর নির্যাতন চালান ও হত্যার হুমকি দেন।

ডা. জাহানারার করা জিডির একটি কপি নিউজ হান্টের হাতে এসেছে। জিডিতে জাহানারা এহসান লিখেছেন, ‘বিগত ১৯ বছর বিয়ে বন্ধনে আবদ্ধ হয়েছি। বিবাহিত জীবনে আমাদের সংসারে এক মেয়ে রামিসা ফারিহা রাজকন্যা (১৬) এবং এক ছেলে হাসান আবরার মাহির যুবরাজ (১১)। বিবাদী আমার স্বামী। তিনি বর্তমান সরকারের সংসদ সদস্য এবং সাবেক প্রতিমন্ত্রী। সাম্প্রতিক সময়ে তিনি (ডা. মুরাদ) কারণে অকারণে আমাকে এবং সন্তানদের অকথ্য ভাষায় গালিগালাজসহ শারীরিক ও মানসিকভাবে নির্যাতন করিয়া আসিতেছে এবং হত্যার হুমকি প্রদান করিয়া আসিতেছে। আজ ০৬/০১/২০২২ তারিখ সময় অনুমান ০২:৪৫ ঘটিকার দিকে পূর্বের ন্যায় আমাকে এবং আমার সন্তানদের গালিগালাজ করে এবং মারধর করার জন্য উদ্যত হইলে আমি ৯৯৯-এ কল করিলে ধানমন্ডি থানা পুলিশ বাসার ঠিকানায় পৌঁছালে বিবাদী বাসা হইতে বাহির হইয়া যায়। আমি এমতাবস্থায় নিরাপত্তাহীনতায় আছি। বিবাদী আমাকে এবং আমার সন্তানদের যে কোনো সময়ে ক্ষতি সাধন করিতে পারে।’

ধানমন্ডি থানার ওসি ইকরাম আলী মিয়া গণমাধ্যমে জানান, ৯৯৯ থেকে কল পেয়ে সাবেক প্রতিমন্ত্রী মুরাদ হাসানের ধানমন্ডি ১৫ নম্বর সড়কের বাসায় পুলিশ পাঠানো হয়েছে। স্বামীর বিরুদ্ধে নির্যাতন ও প্রাণ নাশের হুমকির অভিযোগ আনেন তিনি। এ ব্যাপারে জাহানারা এহসান থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন।

সম্প্রতি এক চিত্রনায়িকার সঙ্গে ডা. মুরাদের অশালীন ফোনালাপ সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। এরপর জামালপুর-৪ (সরিষাবাড়ী) আসনের এই সংসদ সদস্যকে মন্ত্রিসভা থেকে পদত্যাগ করার নির্দেশ দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

গত ৭ ডিসেম্বর তিনি পদত্যাগ করলে ওইদিন রাতেই তার পদত্যাগপত্র গ্রহণ করে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়। একইদিনে জামালপুর জেলা আওয়ামী লীগের এক জরুরি সভায় মুরাদ হাসানকে জেলা আওয়ামী লীগের স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যাবিষয়ক সম্পাদকের পদ থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়।

এর ধারাবাহিকতায় তাকে সরিষাবাড়ী উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য পদ থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়। মুরাদ হাসানকে তার নিজ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সদস্য পদ থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়।এ ছাড়া মুরাদের আওয়ামী লীগের প্রাথমিক সদস্যপদ বাতিলের বিষয়েও দলের পরবর্তী কার্যনির্বাহী সংসদের বৈঠকে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে বলে জানা গেছে।

গত ৯ ডিসেম্বর দিবাগত রাতে কানাডার উদ্দেশে দেশত্যাগ করেছিলেন তিনি। এরপর কানাডার টরন্টো পিয়ারসন আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছলেও তাকে সে দেশে ঢুকতে দেয়া হয়নি। সেখান থেকে তাকে দুবাইগামী একটি ফ্লাইটে তুলে দেওয়া হয়। কিন্তু দুবাইও তাকে ঢুকতে দেওয়া হয়নি বলে বিভিন্ন গণমাধ্যমে খবর প্রকাশ হয়। সেখানেও ব্যর্থ হওয়ার পর আর উপায় না পেয়ে দেশে ফিরে আসেন বিতর্কিত এ রাজনীতিক।

নিউজ হান্ট/কেএইচ

সর্বশেষ

বিদায় নিচ্ছেন সানিয়া মির্জা

করোনায় একদিনে বিশ্বে ৩২ লাখ শনাক্ত

সন্তান ধারনে এইডস আক্রান্ত নারীর ঝুঁকি অনেক বেশি

কর্মবিরতির হুমকি রেল কর্মীদের

দেশে চা উৎপাদনে নতুন রেকর্ড